সোমবার ০৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

গর্ভবতী মা-ও বাদ যায়নি ইসরাইলী তাণ্ডব থেকে

৫ মে, মিডল ইস্ট মনিটর : হামলায় ১৪ মাসের এক শিশু এবং তার গর্ভবতী মা-সহ পাঁচজনকে হত্যা করে দখলদার বাহিনী। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে মিডল ইস্ট মনিটর। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, নিহত শিশুটির নাম সাবা আরার। তাদের ভবনটি হানাদার বাহিনীর লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হলে মর্মান্তিক এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। তবে দখলদার বাহিনীর দাবি, তারা শুধু সামরিক স্থাপনা লক্ষ্য করে এ হামলা চালিয়েছে।

গাজা উপত্যকায় তুরস্কভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি-র সদর দফতর ভবনকেও বিমান হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে ইসরাইল। ইসরাইলী বিমান হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত স্কুলগুলো একদিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে গাজার কতৃপক্ষ। ইসরাইলের সেনাবাহিনীর দাবি, গাজা উপত্যকা থেকে ইসরাইলে রকেট নিক্ষেপের পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে এ বিমান হামলা চালিয়েছে তারা।

ফিলিস্তিনিদের নিজেদের ভূমি থেকে উচ্ছেদ করে ১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় জায়নবাদী রাষ্ট্র ইসরাইল। ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরাইল যুদ্ধের পর থেকে ইসরাইল পূর্ব জেরুজালেম দখল করে রেখেছে। ফিলিস্তিনিরা চায় পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী করে পশ্চিম তীরে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে। অন্যদিকে পূর্ব জেরুজালেমকে নিজেদের অবিভাজ্য রাজধানী বলে দাবি করতে থাকে ইসরাইল। অবশ্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় পূর্ব জেরুজালেমে ইসরাইলী দখলদারিত্বকে স্বীকৃতি দেয় না। পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে অবৈধভাবে নির্মিত বসতিতে প্রায় ছয় লাখ ইসরাইলী বসবাস করে। এই দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনি জনতার প্রতিরোধকে সন্ত্রাসবাদ হিসেবে আখ্যায়িত করে ইসরাইল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ