শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

আবারও পরিবর্তন আনা হলো বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জার্সিতে

স্পোর্টস রিপোর্টার : আবারও পরিবর্তন আনা হয়েছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জার্সিতে। এবার সবুজ রঙের জার্সিতে পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। প্রথম দফা বানানো জার্সিতে পরিবর্তন আনা হয়েছিল সেখানে শুধু সবুজ রং থাকায়। বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের তোপের মুখে পরিবর্তন হওয়া সেই ডিজাইনে হাতে লাল শেড আনা হয়। তবে সেই জার্সিতেও আবার বদল আনা হয়েছে। নতুন জার্সিতে হাতায় আর লাল শেড রাখা হয়নি। বিশ্বকাপের জার্সি উন্মোচন করার পর সেটা নিয়ে তুমুল সমালোচনার মুখে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন নিজেই জানিয়েছিলেন, আইসিসির অনুমোদন সাপেক্ষে আমরা জার্সি পরিবর্তন করতে যাচ্ছি। 

৩০ এপ্রিল নিজ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি জার্সি ও নতুন ডিজাইনও দেখিয়েছিলেন সাংবাদিকদের। তবে, বিসিবি সভাপতির দেখানো সেই জার্সি ও ডিজাইনও থাকছে না শেষ পর্যন্ত। তৈরি করা হয়েছে আরও একটি ডিজাইন। আরও একটি পরিবর্তন এনে নতুন ডিজাইনের জার্সিও ছবি গতকাল গণমাধ্যমে পাঠিয়েছে বিসিবি। ফলে মোট দুই দফা পরিবর্তন করা হলো বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জার্সিতে। সর্বশেষ চূড়ান্ত হওয়া ডিজাইন অনুসারে শুধুমাত্র লাল রঙ থাকছে জার্সির বুকে। প্রথম দফা পরিবর্তনের পর ডিজাইনে দেখা গিয়েছিল জার্সি ও হাতায় লাল রং। অর্থাৎ জাতীয় পতাকার আদলেই লাল আর সবুজ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে নতুন জার্সির ডিজাইন।

 এবারের বিশ্বকাপে প্রতিটি দলকেই রাখতে হচ্ছে বিকল্প জার্সি। ফুটবলের মত এটাকে অ্যাওয়ে জার্সিও বলা যায়। আইসিসির বেধে দেয়া নিয়মের কারণেই সবুজ জার্সিও বুকে লাল রঙয়ের ঠিক উল্টো, অর্থাৎ লালের বুকে সবুজ রং থাকছে বিকল্প জার্সিতে। মূল জার্সিও লালের মধ্যে সাদা অক্ষরে লেখা থাকবে বাংলাদেশ। 

জার্সির পেছনে থাকবে সাদা রঙয়ে জার্সি নাম্বার এবং খেলোয়াড়ের নাম। বিকল্প জার্সিতেও একই অবস্থা। বুকের ওপর লালের মধ্যে সাদা রঙয়ে থাকবে দেশের নাম। পেছনে সাদা রঙয়ে জার্সি নম্বর এবং খেলোয়াড়ের নাম। বিসিবি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতেই জানিয়েছে, তারা প্রথমে সবুজ জার্সিও ওপর লাল রঙয়ে দেশের নাম, পেছনে লাল রঙয়ে খেলোয়াড়ের নাম এবং জার্সি নাম্বার দিয়েছিল। কিন্তু আইসিসি তাদেরকে পরামর্শ দিয়েছে লালের পরিবর্তে দেশের নাম, জার্সি নাম্বার এবং খেলোয়াড়ের নাম সাদা রঙয়ে লেখার জন্য। সেই পারমর্শের আলোকেই লাল বাদ দিয়ে সাদা রঙয়ে লেখা হয় দেশের নাম, জার্সি নম্বর এবং খেলোয়াড়ের নাম। কিন্তু জার্সির মধ্যে লালের সংমিশ্রণ রাখার স্বার্থে বিসিবি সেই জার্সিতে পরিবর্তন নিয়ে আসে। পরিবর্তিত জার্সি আবার আইসিসির অনুমোদনও পেয়েছে ইতিমধ্যে। মোট ২০টি নকশা তৈরি করে তা অনুমোদনের জন্য ক্রিকেট বোর্ডে জমা দেয়া হয়েছিল।

 সেখান থেকে দুই রঙের জার্সি চূড়ান্ত করে বিসিবি। প্রাথমিক নকশায় সবুজ জার্সিতে ‘বাংলাদেশ’ ও ক্রিকেটারদের নম্বর লেখা ছিল লাল রঙে। কিন্তু আইসিসির নির্দেশনায় সেটা সাদা করতে বাধ্য হয় বিসিবি। সবুজ রংয়ের জার্সি পরেই অফিসিয়াল ফটোসেশনে অংশ নেন ক্রিকেটাররা। গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জার্সির ছবি ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয়ে আলোচনা-সমালোচনা। জার্সির ডিজাইন ও রং নিয়ে আপত্তি অনেকেরই। বিশেষ করে সবুজ জার্সি নিয়ে সমালোচনা হয়েছে বেশি। সবুজের মাঝে লালের অনুপস্থিতি মেনে নিতে পারছিলেন না ক্রিকেট ভক্তরা। তাইতো মঙ্গলবার দুপুরে আইসিসির অনুমোদন নিয়ে ফের জার্সি বদলের উদ্যোগ নেয় বিসিবি। কিন্তু একদিনের ব্যবধানে দ্বিতীয় দফায় হোম জার্সিটি বদলে ফেললো বিসিবি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ