রবিবার ২৯ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

একাদশ সংসদ প্রত্যাখান শপথ না নেয়ার বিষয়ে অনঢ়

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলের নির্বাচিতদের শপথ না নেওয়ার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। সোমবার রাতে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপার্সনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। দলটির নীতিনির্ধারকরা মনে করেন, তারা নির্বাচনকে প্রত্যাখান করে নতুন করে নির্বাচনের দাবি করেছে। তাই সংসদে গেলে নির্বাচনকে বৈধতা দেয়া হবে। এছাড়া নির্বাচিতদের কেউ দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও সিদ্ধান্ত নেয় স্থায়ী কমিটি।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান প্রমুখ।
বৈঠকের বিষয়ে স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য বলেন, দলের নির্নাচিতদের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ না নেয়ার ব্যাপারে বিএনপি আগেই সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু সম্প্রতি বিএনপির নির্বাচিত এমপিরা শপথ নিতে আগ্রহী গণমাধমে এমন সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান স্কাইপিতে সিনিয়র নেতাদের মতামত জানতে চান। এসময় স্থায়ী কমিটির নেতারা শপথ না নেয়ার পক্ষে মত দেন। তিনি জানান, সবার মতামতে ভিত্তিতে শপথ না নেয়ার বিষয়ে অনঢ় বিএনপি। দুই এক দিনের মধ্যে নির্বাচিত ৬ এমপি গুলশান কার্যালয়ে ডেকে তা তাদের জানিয়ে দেওয়া হবে। দলের সিদ্ধান্ত কেউ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ সদর আসনের নির্বাচিত বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হারুনুর রশিদ সংসদে যাওয়ার বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাবের কথা জানিয়েছেন-এ বিষয়ে আপনাদের মনোভাব কী? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আগে উনি শপথ নিক। তারপর দেখা যাবে।
জানা গেছে, দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আইনি লড়াইকে আরও গুরুত্ব দেয়ার বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। খালেদা জিয়ার অসুস্থতা, তার চিকিৎসা এবং তার মামলা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। তার চিকিৎসায় কোনো সমস্যা আছে কি না তার দিকে খেয়াল রাখার জন্য সিনিয়র আইনজীবীদেরকে সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব বন্টন করে দেয়ার বিষয়ে কথা হয়েছে।
সভায় গৃহিত সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে গুরুতর অসুস্থ থাকার পর গত রোববার ইউনাইটেড হাসপাতালে দলের ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আমিনুল হক-এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দু:খ প্রকাশ করা হয়, একইসাথে মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা এবং তার পরিবার ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ