শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সংশোধন-যাত্রা ওপর থেকে

সঠিক পরিকল্পনা, সঠিক নির্মাণ ও সঠিক সংরক্ষণ তিনটিই সমান গুরুত্বপূর্ণ। সুষ্ঠু পরিকল্পনা যদি না হয় নির্মাণ কাজ সঠিক হবে না। আবার সঠিক নির্মাণ যদি না হয় সুষ্ঠু পরিকল্পনা কোনো কাজ দেয় না। অনুরূপভাবে সুষ্ঠু সুচিন্তিত পরিকল্পনার অধীনে সঠিকভাবে কাজ হলেও উপযুক্ত সংরক্ষণের ব্যবস্থা যদি না থাকে তাহলে সঠিক নির্মাণের সুফল মানুষ ভোগ করতে পারে না। এই বিষয়টি আমাদের সমাজ ও রাষ্ট্রের দায়িত্বশীল ব্যক্তিগণ জানেন না- এটা কোনোভাবেই সত্য নয়। বরং অন্য সবার চেয়ে তারাই বেশি জানেন। এটাই বাস্তবতা।
কিন্তু দুঃখের বিষয় বিভিন্ন কাজ ও প্রকল্পের দায়িত্বশীলরা এবং এই দায়িত্বশীলদের তদারককারী কর্তৃপক্ষ মহল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই যা জানেন তা মানেন না। আমাদের দেশে বর্তমানে প্রকল্প গ্রহণের সময়, বিশেষ করে সেবামূলক ক্ষেত্রে, রাজনৈতিক বিবেচনা এবং কখনো কখনো নানা কারণে তাড়াহুড়া সঠিক পরিকল্পনা গ্রহণের ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। ঢাকা শহরের একটা রাস্তার ওপর রিপোর্টে দেখা গেছে রাস্তাটা তৈরির সময় ব্রীজ ও ড্রেন তৈরির ক্ষেত্রে পানি নিঃষ্কাশনের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হয়নি। তার ফলে এক দু’দিনের বৃষ্টিতেও যেখানে পানি জমতো না সেখানে অল্প বৃষ্টিতেই রাস্তা নদীর রূপ নেয়। তার ফলে রাস্তা তৈরির তিন চার বছরের মাথায় রাস্তা, ব্রীজ, ড্রেন ভেঙ্গে নতুন করে তৈরি করা হচ্ছে। এইভাবে পরিকল্পনার ত্রুটি, নির্মাণের ত্রুটি এবং সংরক্ষণের ত্রুটি দেশে একটা সাধারণ দৃশ্যে পরিণত হয়েছে। গত পরশু কাগজে একটা সংবাদ বেড়িয়েছে, খুলনার দাকোপে পাউবোর বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে দু’টি গ্রামের দু’শতাধিক পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। খবরটিতে বলা হয়েছে, পশুর নদীর প্রবল জোয়ারের তোড়ে পাউবোর প্রায় দু’শ মিটার বেড়িবাঁধ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ওখানকার ইউপি চেয়ারম্যান তার সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, পাউবোর বেড়িবাঁধের যে স্থানটি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে ঐস্থানটি অনেক আগে থেকেই ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছিল। বাঁধটি দ্রুত সংস্কার বা বিকল্প প্রটেকশন বাঁধ নির্মাণের কথা কর্তৃপক্ষকে বলা হলেও সেটি না করায় আজ এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। প্রবল জোয়ারের তোড়ে প্লাবিত হওয়ায় এলাকার মানুষের যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে, বাঁধ সংরক্ষণে পাউবোর অবহেলাই তার কারণ।
এইভাবে পরিকল্পনার ত্রুটি, নির্মাণ ত্রুটি এবং সংরক্ষণ ত্রুটির কারণে দেশের উন্নয়ন অবকাঠামোর ক্ষতি হচ্ছে, কোটি কোটি টাকা গচ্ছা যাচ্ছে এবং সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগের স্বীকার হচ্ছে দেশের মানুষ। দেশে অব্যাহতভাবে এটা চলতে পারেছে তার কারণ কোনো ত্রুটি, কোনো অপচয় এবং কোনো দুর্ভোগের প্রতিকার নেই। প্রতিকার হলে উন্নয়নের নামে আমরা যে টাকা ব্যয় করছি তার অনেক কম টাকায় দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি আরো অনেক  বেশি পাওয়া যেতো। দেশকে এর হাত থেকে বাঁচাতে হলে নীচ থেকে নয় ওপর থেকে সংশোধন-যাত্রা শুরু করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ