সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের অবরোধে রেলের ১৫ লাখ টাকা লোকসান

 

খুলনা অফিস : পাটকল শ্রমিকদের অবরোধের কারণে রেলের লোকসান হয়েছে। চলতি মাসের প্রথম দফায় তিনদিনে লোকসান হয় ১৫ লক্ষাধিক টাকা। যাত্রীর চাপ কম এবং অগ্রিম বিক্রিত টিকিট ফেরতের কারণে এ পরিমাণ লোকসান হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্টেশন মাস্টার।

জানা গেছে, মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন, গ্রাচ্যুইটি ও পিএফ’র টাকা দেয়াসহ ৯ দফা দাবিতে ২, ৩ ও ৪ এপ্রিল রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলের শ্রমিকরা ধর্মঘট পালন করেন। আন্দোলনের দিন সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চার ঘন্টা রাজপথ ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করা হয়। সকাল ৮টা থেকে রেলপথ অবরোধ করা হলেও ওই তিন দিন ভোর ৬টা থেকে খুলনা রেল স্টেশন থেকে কোনো ট্রেন ছাড়েনি। ফলে যাত্রীদের স্টেশনেই অবস্থান করতে হয়। ফলে সকাল ৬টার কমিউটার, সাড়ে ৬টায় কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, সোয়া ৭টায় রূপসা এক্সপ্রেস, ৮টা ৪০ এ চিত্রা এক্সপ্রেস, ৯টা ১০ এর রকেট ছাড়া সম্ভব হয়নি। এদিকে দুপুর ১২টা ১০ মিনিটে মহানন্দা এক্সপ্রেস থাকলেও তা নির্দিষ্ট সময়ে স্টেশন ত্যাগ করতে পারেনি। আন্দোলনের পরে ধারাবাহিকভাবে স্টেশনে অপেক্ষারত সকল ট্রেন চলাচল শুরু করে।

এদিকে স্টেশন থেকে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট অগ্রিম বিক্রি করা হয়। আর বেনাপোলগামী ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হয় ট্রেন ছাড়ার আগ মুহূর্তে। যার কারণে টিকিট কম বিক্রি হওয়া এবং যাত্রীদের নিকট বিক্রিত টিকিট ফেরতের চাপ বাড়ে। যার কারণে ওই তিনদিনেই খুলনা স্টেশনে ট্রেনের টিকিট ফেরত ও গাড়ি ছাড়ার পূর্বে টিকিট বিক্রি কম হওয়ায় লোকসান হয়েছে ১৫ লক্ষাধিক টাকা।

খুলনা রেল স্টেশন মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার বলেন, পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলনের কারণে টিকিট বিক্রি কম হওয়া এবং বিক্রিত টিকিট ফেরত দেয়ায় চলতি মাসের প্রথম দফার তিন দিনে রেলের ১৫ লক্ষাধিক টাকা লোকসান হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তবে কি পরিমাণ টিকিট ফেরত দিয়েছেন যাত্রীরা তা তিনি জানাতে পারেননি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ