শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মহারাষ্ট্রে মাওবাদীদের বিস্ফোরণ

১১ এপ্রিল, ইন্টারনেট : ভারতের মহারাষ্ট্রের গড়চিরৌলিতে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ভোট বানচালের চেষ্টা চালিয়েছে মাওবাদীরা। গড়চিরৌলি জেলার এটাপল্লিতে একটি ভোটকেন্দ্রের সামনে এই হামলা চালানো হয়। তবে এই হামলায় হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি। ছত্তীশগড়ের বস্তারেও গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ভোট বানচালের চেষ্টা চালিয়েছে মাওবাদীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে সেনারা। দু’পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময় হয়েছে। নারায়ণপুরের ফরাসগাঁওতে আইটিবিপি জওয়ানদের একটি কনভয় ভোটকেন্দ্রের দিকে যাওয়ার সময় হামলা চালায় মাওবাদীরা। পাল্টা গুলি চালায় সেনা সদস্যরাও। সেনারা নির্দিষ্ট বুথে পৌঁছনোর পর পরই সেখানে ভোট শুরু হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালেই সেখানে ভোট পান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরণ রিজিজু, আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত, ওয়াইএসআর কংগ্রেসের প্রধান জগনমোহন রেড্ডি। প্রথম দুই ঘণ্টায় অর্থাৎ সকাল ৯টা পর্যন্ত নাগাল্যান্ডে ভোট পড়েছে ২১ শতাংশ। এখানে ভোট হচ্ছে একটি লোকসভা আসনে। প্রথম দুই ঘণ্টায় উত্তরপ্রদেশে ভোট পড়েছে ১০ শতাংশ। ছত্তীশগড়ের বস্তারে প্রথম দুই ঘণ্টায় ১০ দশমিক ২ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তেলেঙ্গানায় ভোট পড়েছে ১০ দশমিক ৬ শতাংশ, আসামে ভোট পড়েছে ১০ দশমিক ২ শতাংশ, অরুণাচল প্রদেশে ভোট পড়েছে ১৩ দশমিক ৩ শতাংশ।

অরুণাচল প্রদেশ, আসাম, ছত্তীশগড়, মণিপুর, মেঘালয়, উত্তরাখ- এই ছয়টি রাজ্যে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। এই রাজ্যগুলোতে মূল লড়াই হচ্ছে বিজেপি এবং কংগ্রেসের মধ্যেই। একমাত্র ছত্তীশগড়ে ক্ষমতা কংগ্রেসের হাতে। বাকি সব রাজ্যেই বিজেপি বা এনডিএই রয়েছে শাসকের আসনে।

বিহার এবং মহারাষ্ট্রে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ-এর সঙ্গে লড়াই ইউপিএর। মহারাষ্ট্রে ইউপিএর নেতৃত্বে রাহুলের কংগ্রেসই। কিন্তু বিহারে ওই জোটের নেতৃত্ব লালু প্রসাদের আরজেডির হাতে, কংগ্রেস সেখানে ছোট শরিক। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ