বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

একদিন জম্মু ও কাশ্মীর পৃথক প্রধানমন্ত্রী পাবে  -----ওমর আব্দুল্লাহ

২ এপ্রিল, এনডিটিভি : এক দিন জম্মু ও কাশ্মীর পৃথক প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্ট পাবে বলে মন্তব্য করেছেন জম্মু ও কাশ্মীর ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ওমর আব্দুল্লাহ।

বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, সোমবার কাশ্মীরের বানদিপোরে এক নির্বাচনী সমাবেশে আব্দুল্লাহ বলেছেন, যারা সংবিধানের ৩৫এ আর্টিকেল ছেঁটে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন তাদের জানা উচিত যে জম্মু ও কাশ্মীর তার প্রধানমন্ত্রী ও ‘সদর ই রিয়াসাত’ পদ ফিরে পাবে।

ভারতীয় ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার সময় জম্মু ও কাশ্মীর তাদের নিজস্ব ‘সংবিধান ও পরিচয়’ এর শর্ত জুড়ে দিয়েছিল, যা ভারতীয় সংবিধানের আর্টিকেল ৩৫ হিসেবে সংরক্ষিত আছে।

আব্দুল্লাহ বলেছেন, আর্টিকেল ৩৫ যদি সংশোধন করা হয় তাহলে ভারতকে জম্মু ও কাশ্মীরের সংযুক্তির বিষয়ে ফের মধ্যস্থতা করতে হবে।  

তার এ মন্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র  মোদি, সোমবার হায়দ্রাবাদের এক নির্বাচনী সমাবেশে কংগ্রেসের কাছে তাদের মিত্রের এই মন্তব্য সম্পর্কে ব্যাখ্যা চেয়েছেন তিনি।

আব্দুল্লাহর নাম উল্লেখ না করে  মোদি বলেছেন, “তিনি বলেছেন সময়কে পিছিয়ে নিয়ে যাবেন এবং ১৯৫৩ সালের আগের পরিস্থিতি ফিরিয়ে আনবেন আর ভারতে দুজন প্রধানমন্ত্রী থাকবে, কাশ্মীরের পৃথক প্রধানমন্ত্রী থাকবে।

“কংগ্রেসকে অবশ্যই জবাব দিতে হবে তাদের মিত্র কীভাবে এ ধরনের কথা বলে।” 

লোকসভা ভোটে জম্মু ও কাশ্মীরের সাতটি আসনের জন্য ন্যাশনাল কনফারেন্সের সঙ্গে জোটবদ্ধভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছে কংগ্রেস।  মোদির ব্যাখ্যার দাবীতে কংগ্রেস সাড়া না দিলেও টুইটারে আব্দুল্লাহ সাড়া দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, “জম্মু ও কাশ্মীরের সংযুক্তির জন্য ১৯৪৭ সালে মহারাজা হরি সিং যে শর্তারোপ করেছিলেন তা পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য আমার দল সবসময় প্রস্তুত আছে এবং কোনো দ্বিধা ছাড়াই আমরা এটি করে যাবো।”

তিনি আরও বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী মোদি আমার বক্তব্যে মনোযোগ দিয়েছেন দেখে আমি কৃতার্থ আর আজ আমার বক্তব্য সামনে নিয়ে আসার জন্য বিজেপির সামাজিক গণমাধ্যম সেলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি, বিশেষভাবে সাংবাদিকদের কাছে তা হোয়াটসঅ্যাপিং করার জন্য। আমার চেয়ে আপনাদের দিগন্ত আরও অনেক বড়।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ