শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

কিম জং নাম হত্যাকাণ্ডে প্রাণদণ্ড রহিত ভিয়েতনামী নারীর

১ এপ্রিল, রয়টার্স : উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সৎভাই কিম জং নামের হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় অভিযুক্ত ভিয়েতনামী নারী প্রাণদণ্ড এড়াতে পেরেছেন। 

 সোমবার মালয়েশিয়ার কৌঁসুলিরা তার বিরুদ্ধে আনা খুনের অভিযোগ তুলে নেওয়াতে প্রাণদণ্ড এড়াতে পেরেছেন তিনি, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। 

খুনের অভিযোগ তুলে নিয়ে ডোয়ান থি হুয়াংয়ের (৩০) বিরুদ্ধে ক্ষতি করার অভিযোগ আনা হয়েছে আর এই অভিযোগের দায় তিনি স্বীকারও করে নিয়েছেন।

বিচারক তাকে তিন বছরেরও বেশি সময়ের জন্য কারাদণ্ড দিয়েছেন। তবে হুয়াংয়ের আইনজীবী জানিয়েছেন, আগামী মাসেই তিনি মুক্ত হতে পারেন।  

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে কুয়ালালামপুরের প্রধান বিমানবন্দরে হুয়াং ও ইন্দোনেশীয় নারী সিতি আইশা জং নামের মুখে প্রাণঘাতী রাসায়ানিক অস্ত্র ভিএক্স বিষ মেখে দিয়েছিলেন। ওই ঘটনার কিছুক্ষণের মধ্যেই নামের মৃত্যু হয়েছিল।

এ ঘটনায় হুয়াং ও আইশার বিরুদ্ধে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ আনা হয়েছিল। কিন্তু গত মাসে কৌঁসুলিরা আইশার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ তুলে নেওয়ার পর তিনি মুক্তি পান।

পরিবারের রাজকীয় ধরনের শাসনের সমালোচক হওয়ায় উত্তর কোরিয়ার শাসকগোষ্ঠীর নির্দেশে নামকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের। উত্তর কোরিয়া এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

নামের ওপর হামলার জন্য যারা মূলত দায়ী তারা পালিয়ে আছেন বলে বিশ্বাস করা হয়। তাই এই দুই নারীর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ আনায় মালয়েশিয়ার সমালোচনা হচ্ছিল। খুনের অভিযোগ প্রমাণিত হলে দেশটিতে মৃত্যুদণ্ড বাধ্যতামূলক।

 

গত সোমবার মালয়েশিয়ার কৌঁসুলিরা হুয়াংয়ের বিরুদ্ধে ‘মারাত্মক অস্ত্র বা উপায়ে আঘাত করার’ বিকল্প অভিযোগ আনেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ