শুক্রবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২০
Online Edition

স্বাধীনতার প্রকৃত স্বাদ পেতে সমাজে ন্যায় বিচার ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই --হাফিজ আব্দুল হাই হারুন

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী সিলেট মহানগরীর নায়েবে আমীর হাফিজ আব্দুল হাই হারুন বলেছেন- গণতন্ত্র, মানবিক মূল্যবোধ ও সাম্য মহান স্বাধীনতার মূলমন্ত্র হলেও প্রতিহিংসা ও বিভাজনের রাজনীতির কারণে ৪৮ বছরেও আমরা সে লক্ষ্য অর্জন করতে পারিনি। আত্মনির্ভরশীলতা মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের চেতনা হলেও এখনও আমরা পশ্চাদপদ। অপরদিকে আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব আজ হুমকির সম্মুখীন। দেশের উন্নয়ন, অগ্রগতি ও সার্বভৌমত্ব নিয়ে চলছে নানামুখী ষড়যন্ত্র। স্বাধীনতা সংগ্রাম ছিল এদেশের মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন। কিন্তু অনেক আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন বাংলাদেশে মানুষের অধিকার, আইনের শাসন, মানবাধিকার আজ ভূলুন্ঠিত। মানুষ অন্যায়ের প্রতিবাদ পর্যন্ত করতে পারছেনা। ক্ষমতাসীনদের অপরাজনীতি ও দুঃশাসনের কারণে দীর্ঘকালের পরিক্রমায়ও মানুষের অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়নি। তাই মানুষের মৌলিক অধিকার আদায়ে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভুমিকা পালন করতে হবে। তিনি গত মঙ্গলবার ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সিলেট মহানগর জামায়াত আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি মাওলানা সোহেল আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, শ্রমিক নেতা ফারুকুজ্জামান খান, জামায়াত নেতা চৌধুরী আব্দুল বাছিত নাহির, উবায়দুল হক শাহীন, ইয়াসীন খান ও এডভোকেট এবাদুর রহমান প্রমুখ। সভায় নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, শোষণ, বঞ্চনা ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে দীর্ঘ রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে স্বাধীন বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল। কিন্তু মহান স্বাধীনতার ৪৮ বছর অতিক্রান্ত হলেও দেশে ন্যায়বিচার ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠিত হয়নি। অর্থনৈতিক মুক্তি না পেয়ে ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও বৈষম্যের যাঁতাকলে বিপর্যস্ত এ দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠী। বাকশাল ও স্বৈরতন্ত্রের কবলে পড়ে গণতন্ত্র আজ নির্বাসনে গেছে। গণতন্ত্র ও মৌলিক অধিকার সংবিধান স্বীকৃত হলেও ক্ষমতাসীন দল তা হরণের মাধ্যমে স্বাধীনতার চেতনা ধ্বংস করে দেশে জুলুমতন্ত্র ও ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েম করেছে। ফলে স্বাধীনতার স্বাদকে পুরোপুরি অর্থবহ করতে হলে দেশপ্রেমিক জনতাকে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে স্বৈরাচার জুলুমবাজ ও ফ্যাসিবাদী অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে গর্জে উঠতে হবে। স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মদানকারী সকলের অবদানকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং শহীদ পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান তারা। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ