মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

ফুটবল ক্লাব সমিতি পূর্ণাঙ্গ কমিটি করেই লিগ বর্জনের হুমকি

স্পোর্টস রিপোর্টার : দীর্ঘদিন পর বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব সমিতি পুণরুজ্জীবিত হলেও সেই কমিটির সঙ্গে নেই আবাহনী ও শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। গত ২২ জানুয়ারি বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব সমিতি পুর্নগঠন করে শুধু সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়েছিল। দুই মাস পর ঘোষণা করা হলো ৮২ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি। সেই সাথে ৫ জন উপদেষ্টার নামও। হোটেল পূর্বাণীতে গতকাল মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে কমিটির নাম ঘোষণা করেছেন সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন। কমিটির সাধারণ সম্পাদক আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের সভাপতি একেএম মমিনুল হক সাঈদ।তিনটি এজেন্ডা নিয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব সমিতি। পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ও চ্যাম্পিয়নশিপ লিগ নিয়ে আলোচনা এবং বাফুফের সদস্য ও মহিলা উইংসের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত।সভাপতির ভাষণে তরফদার মো. রুহুল আমিন বলেছেন, ‘আমরা ক্লাবগুলো মিলে প্রতিবছর একশ থেকে দেড়শ কোটি খরচ করি। কিন্তু সেভাবে ফুটবল উন্নয়ন হচ্ছে না। ক্লাব ও বাফুফের মধ্যে একটা দূরত্ব তৈরি হয়ে আছে। বাফুফের সঙ্গে দরকষাকষি করার জন্যই এ সমিতি গঠন করা হয়েছে।’

সভায় পৃষ্ঠপোষক ছাড়া বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ চলতে থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে। ‘দেশের শীর্ষ লিগটা বাফুফে বিক্রি করতে পারে না। এটা অত্যন্ত লজ্জার। ক্লাবগুলো পাওনা ঠিকমতো পরিশোধ করতে পারে না। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় লিগ শুরু আগের সব ন্যায্য পাওনা পরিশোধ করতে হবে। তা না হলে আমরা প্রিমিয়ার লিগ খেলবো কিনা ভেবে দেখবো’-বলেছেন ক্লাব সমিতির সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন।এদিকে বাফুফেকে এজিএম করতে ক্লাব সমিতির আলটিমেটাম দিয়েছে। ২০১৬ সালের এপ্রিলে বাফুফের বর্তমান কমিটির নির্বাচন অনুষ্টিত হয়েছিল। আগামী বছর আবারো নির্বাচন অনুষ্টিত হতে যাচ্ছে। অথচ গত তিন বছরে বাফুফে অবশ্য কোনো এজিএম করেনি।তাই ক্লাব সমিতির সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন বাফুফেকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এজিএম-এর তারিখ ঘোষণার আহবান জানিয়েছেন।তার ভাষ্য অনুযায়ি ‘আগামী ১৫ দিনের মধ্যে বাফুফেকে এজিএম করতে হবে। এজিএম এর ১ মাস আগে বাফুফের যাবতীয় আয়-ব্যয়ের অডিট রিপোর্ট কাউন্সিলরদের কাছে পাঠাতে হবে। আমরা সেই রিপোর্ট দেখে কোনো ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকলে জানাবো। যদি এজিএম করতে বাফুফে ব্যর্থ হয় তাহলে আমরা কাউন্সিলররাই তলবি সভার আহবান করবো’।

এছাড়া অন্য দাবীগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোকে ৪০ লাখ টাকা করে এবং বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লিগের ক্লাবগুলোকে ২০ লাখ টাকা করে অংশগ্রহণ ফি দেয়ার। প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় রাউন্ড শুরুর আগে এ পাওনা পরিশোধ না করলে ৮ ক্লাব লিগে অংশ নেবে না বলেও হুশিয়ারিও দেয়া হয়েছে।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে বাফুফের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও মহিলা উইংসের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণের বিষয়ে বাফুফের অবস্থান পরিস্কার করতে বলেছে ক্লাব সমিতি। এ সভায় মাহফুজা আক্তার কিরণের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাবও গৃহীত হয়।ক্লাব সমিতির নেতৃবৃন্দের বক্তব্যের সারাংশ এবং মাহফুজা আক্তার কিরণের বিষয়ে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেলের কাছে স্মারকলিপি প্রদানেরও সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানালেন তরফদার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ