মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

কর্মসংস্থান বাড়াতে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের কম সুদে ঋণ দিতে হবে ---শিল্পমন্ত্রী

 

স্টাফ রিপোর্টার: শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি এসএমই উদ্যোক্তাদের দিকে নজর দিন। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সহজে ও কম সুদে ঋণ বাড়িয়ে দিন। এতে আমাদের কর্মসংস্থান বাড়বে।

গতকাল শনিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু  আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এসএমই ফাউন্ডেশন আয়োজিত ৭ম জাতীয় এসএমই মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কে এম হাবিব উল্লাহের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, শিল্প সচিব মো. আবদুল হালিমসহ আরো অনেকে।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখছেন। আমরা ১ কোটি ২১ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি অঙ্গীকার করেছি। এসএমই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে স্ব স্ব দক্ষতায় উদ্যোক্তা ও কর্মসংস্থান সৃষ্টি করায় তাদের ধন্যবাদ জানাই।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সরকার নারীদের উন্নয়নে প্রাধান্য দিয়ে থাকে। এসএমই মাধ্যমে নারী জাগরণ হচ্ছে। এক সময় নারীরা স্বামীদের উপর নির্ভর ছিলেন। আত্মনির্ভরশীলতা ছিল না। আজ তারা উপার্জনক্ষম হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে  সম্মানিতও হচ্ছেন। এটা একটা বিশাল অর্জন। এটার বিস্তৃতি আরো বাড়াতে হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, এই মেলা বিশাল একটি উদ্যোগ। এতে প্রায় তিনশ’র মতো স্টল আছে। তাই নারীদের দেশীয় পণ্য তৈরিতে আঞ্চলিক ভিত্তিতে সহযোগিতা করলে, কম সুদে সহজে ঋণ দিতে হবে।

তিনি বলেন, এটাকে স্বদেশী আন্দোলনও বলতে পারেন। আমরা কাউকে বর্জন করতে চাই না। তবে আমাদের দেশীয় পণ্য ব্যবহার করতে চাই। বিদেশেও রপ্তানি করতে চাই।

কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন,বিদেশিদের কাছে  এসএমই পণ্যকে পরিচিত করতে দেশের বিমানবন্দর, বিদেশি দূতাবাসগুলোতে এসএমই পণ্য প্রদর্শনীর জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে ৬টি ক্যাটাগরিতে জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার-২০১৯ প্রদান করা হয়। পুরস্কার প্রাপ্তরা হলেন-বর্ষসেরা মাইক্রো উদ্যোক্তা নারী হিসেবে তাহারিমা বেগম (নুর নকশী মহিলা জাগরণ), বর্ষসেরা মাইক্রো উদ্যোক্তা পুরুষ মো. ওলি উল্লাহ (জনতা ইঞ্জিনিয়ারিং), বর্ষসেরা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা নারী সুমনা সুলতানা সাথী (এস আর হ্যান্ডিক্রাফটস), বর্ষসেরা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা পুরুষ মহিউদ্দিন (মহিউদ্দিন ইঞ্জিনিয়ার্স এন্ড ট্রেডার্স), বর্ষসেরা মাঝারি উদ্যোক্তা নারী নাজমা খাতুন (কুসুম কলি সু ফ্যাক্টরি), বিশেষ ক্যাটাগরিতে আরিফা ইয়াসমিন ময়ুরী (সিড়ি হস্তশিল্প)।

এ বছর সারা দেশ থেকে ২৮০টি প্রতিষ্ঠান তাদের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে মেলায় অংশগ্রহণ করেছে। উদ্যোক্তাদের মধ্যে ১৮৮ জন নারী উদ্যোক্তা এবং ৯২ জন পুরুষ উদ্যোক্তা মেলায় অংশগ্রহণ করেছেন।

 মেলায় দেশে উৎপাদিত পাটজাত পণ্য, খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য, চামড়াজাত সামগ্রী, ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিকস সামগ্রীসহ বেশ কয়েকটি পণ্য প্রদর্শিত ও বিক্রয় হচ্ছে। ১৬ মার্চ থেকে শুরু হওয়া এ মেলা চলবে আগামী ২২ মার্চ পর্যন্ত। সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে মেলা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ