মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০
Online Edition

নীলফামারীতে কর্মকর্তার আদেশ পালন করতে গিয়ে পিডিবি’র ১২ কর্মচারী বরখাস্ত

নীলফামারী সংবাদদাতা : নীলফামারীতে পিডিবি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার আদেশ পালন করতে গিয়ে পিচরেট’র ১২ কর্মচারী চাকরি হতে বরখাস্ত হয়েছেন। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে জেলার ডোমার উপজেলা পিডিবি’র নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে। আদেশদাতা সে কর্মকর্তা এখনও বহাল তবিয়তে অন্যত্র কর্মরত রয়েছেন। তার বিরুদ্ধে কোন ব্যাবস্থা না নিয়ে বলির পাঠা হলেন অধীনস্থরা। এ নিয়ে এলাকায় নানা পশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। জানা যায়, ওই অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী ১৫/০৯/২০১৭ তারিখে তার অফিসের দপ্তরাদেশ বিবিবি/ নওজোপাডিকো/ ডোমার/ ১.২২/২০১৭-১৮ নং স্বারকে একটি আদেশ জারি করেন। জারিকৃত দপ্তরাদেশ মোতাবেক পিচ রেট মিটার পাঠকদের গ্রাহক ব্যাবহার না করলেও গ্রাহক প্রতি সর্বনি¤œ বিদ্যুৎ বিল ১০০ ইউনিট করতে হবে। এর অন্যথা হলে পরবর্তীতে মিটার রিডারদের আর কোন কাজ দেওয়া হবে না। কর্মকর্তার এমন লিখিত আদেশ পালন করতে গিয়ে ওই দপ্তরের ১২ কর্মচারী বিদ্যুৎ গ্রাহকদের বাড়তি বিল করতে থাকেন। এক পর্যায়ে এ সকল অনিয়মের ফলে এ অফিসের আওতাধীন বিদ্যুৎ গ্রাহকদের ভুতুড়ে বিলের সংখ্যা বেড়ে যায়। এক পর্যায়ে এ উপজেলায় গত বছরের ২৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত দুদকের গনশুনানীতে বিষয়টি উত্থাপিত হয়। এর ফলে ওই ১২ কর্মচারীকে গ্রাহক হয়রানি, অতিরিক্ত বিল দাবী ও ভৈতিক বিল করার অভিযোগে নেসকো লিঃ রাজশাহীর উপ-মহাব্যাবস্থাপক এবিএম ইমতিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ চাকরী হতে বরখাস্ত করা হয়। যার স্বারক নং-২৭.২৯.০০০০.০০৭.৩৬.১২৯.১৯, তারিখ-০৭/০২/২০১৯। এলাকাবাসীর অভিযোগ, পিডিবির কাছ হতে নর্দান ইলেকট্রিক সাপ¬াই কো¤পানী লিমিটেড দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে নানা অনিয়মে জড়িয়ে পড়েন ডোমার বিদ্যুৎ অফিসের কর্তা ব্যক্তিরা। তারা নানা বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম বিক্রি ও মিল-কলকারখানাসহ বিভিন্ন গ্রাহককে অবৈধ সুবিধা দিয়ে লাখ লাখ টাকার বিদ্যুৎ চুরি করেন। ফলে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে সিস্টেম লস। ওই সিস্টেম লস মাত্রা সহনীয় রাখতে সাধারন গ্রাহকদের ওপর ভৌতিক বিল চাপিয়ে দিতে তারা এমন বে-আইনী নির্দেশ দেন কর্মচারীদের।

অপরদিকে বরখাস্তকৃত ১২ জন পিসরেট কর্মচারীদের অভিযোগ, বিভাগীয় তদন্তে ডোমার অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী সহ কর্মকর্তা ব্যক্তিদের বাঁচাতে তাদের দুর্নীতির দায় ১২ জন পিসরেট কর্মচারীর উপর চাপিয়ে দিয়ে তাদেরকে চাকরিচ্যুত করে। এর ফলে বরখাস্তকৃত ১২ কর্মচারী বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। ঘটনাটি সুষ্ঠু তন্তের মাধ্যমে চাকরী পুনর্বহালের দাবী করেছে ডোমার নেসকোর চাকরিচ্যুত ১২ জন পিসরেট কর্মচারী। এ ব্যাপারে বর্তমানে কর্মরত ডোমার নেসকোর নির্বাহী প্রকৌশলী ইউসুফ আলী সাংবাদিকদের জানান, আমি এখানে ১৫ ফেব্রুয়ারী যোগদান করেছি। এর অগে কি হয়েছে তা কিছুই অবগত নই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ