সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ভারতকে আবারও সংলাপের প্রস্তাব ইমরান খানের

হামলা-পাল্টা হামলা চলমান থাকার মধ্যেই সংকট নিরসনে ভারতকে আবারও সংলাপের তাগিদ দিলো পাকিস্তান। বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে আলোচনার মধ্য দিয়ে শান্তি স্থাপনের ডাক দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তবে ভারত শান্তির পথে হাঁটতে চাইবে না; এমন আশঙ্কা জানিয়ে ইমরান খান হুঁশিয়ার করেছেন, যেকোনও পদক্ষেপের যথাযথ জবাব দেবে তার দেশ।

 গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ‘ সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের গাড়িবহরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় বাহিনীটির অন্তত ৪০ জন সদস্য প্রাণ হারান। পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদ হামলার দায় স্বীকার করে। মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভারতীয় বিমান বাহিনী ৭১-পরবর্তী ইতিহাসে প্রথমবারের মতো পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের আকাশসীমায় ঢুকে বিমান হামলা চালানোর পর জানায়, ভেতরে সেই জইশ-ই মোহাম্মদের ঘাঁটি ধ্বংসের উদ্দেশ্যেই তারা ওই ‘অসামরিক অভিযান’ পরিচালনা করেছে। বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে দুটি ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার দাবি করে পাকিস্তান। বিপরীতে ভারতও পাকিস্তানের একটি ফাইটার জেট ভূপাতিত করার দাবি করে।

ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই বুধবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন ইমরান খান। ওই ভাষণে ভারতকে আলোচনার মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান তিনি। ইমরান বলেন, ‘পুলওয়ামার ঘটনার পর আমরা ভারতকে শান্তি আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছিলাম। পুলওয়ামার ঘটনায় যেসব পরিবার তাদের সদস্যদের হারিয়েছে তাদের বেদনার কথা আমি বুঝতে পারি। আমি হাসপাতালগুলো পরিদর্শন করেছি এবং সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের যন্ত্রণায় ভুগতে দেখেছি। আমরা আমাদের ৭০ হাজার মানুষকে হারিয়েছি এবং যারা বেঁচে আছে ও যারা আহত হয়েছে তাদের ব্যথা আমি অনুভব করতে পারি। সেদিক থেকে আমরা ভারতকে সহযোগিতার প্রস্তাব দিচ্ছি।’

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘নিজেদের ভূমিকে জঙ্গিবাদের জন্য ব্যবহার হতে দেওয়াটা পাকিস্তানের স্বার্থের সঙ্গে যায় না। এ নিয়ে বাদানুবাদের সুযোগ নেই। তবে আমি এখনও আশঙ্কা করছি, ভারত এ প্রস্তাব উপেক্ষা করবে এবং তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাবে। আগ্রাসন নিয়ে আমি ভারতকে সতর্ক করেছিলাম এবং বলেছিলাম আমরা জবাব দিতে বাধ্য হবো। কারণ, কোনও সার্বভৌম দেশই তাদের সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন সহ্য করবে না।’ 

ভারতকে আলোচনার আহ্বান জানিয়ে ইমরান বলেন, ‘আমি আবারও আপনাদের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আমরা প্রস্তুত। পুলওয়ামার ঘটনায় ভারত কতটা কষ্ট সহ্য করেছে তা আমরা বুঝতে পারি। জঙ্গিবাদ প্রশ্নে যেকোনও আলোচনায় আমরা প্রস্তুত।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ