বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সাব্বিরের প্রথম সেঞ্চুরি

স্পোর্টস রিপোর্টার : শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ ছিলেন ছয় মাস। ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে খেলা হয়নি। নিউজিল্যান্ড সফরেও তার দলভুক্তি নিয়ে নানা কথা। নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নিয়েও নানা নাটক। অবশেষে অনেক ঘটনার জন্ম দিয়ে জাতীয় দলে ফেরাটাকে স্মরণীয় করে রাখলেন রাজশাহীর ড্যাশিং মিডল অর্ডার সাব্বির রহমান রুম্মন। গতকাল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে করলেন ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। গতকাল ডানেডিনে বাংলাদেশ দল যখন ৪০ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে। তখনই উইকেটে আসেন সাব্বির। সেই ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে বলতে গেলে একাই লড়লেন। তুলে নিলেন ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। বাংলাদেশের ইনিংসের তখনও ২৬ বল বাকি। কিউই ফাস্ট বোলার টিম সাউদিকে কাভার ড্রাইভে সীমানার ওপারে পাঠিয়ে ৯৫ থেকে পৌঁছে গেলেন ৯৯- তে। ঠিক পরের বলেই কব্জির মোচড়ে ব্যাকওয়ার্ড স্কয়ার লেগে ঘুরিয়ে সিঙ্গেলস। প্রান্ত বদলের আগেই উচ্ছ্বাস উল্লাস, ব্যাট উঁচুতে তুলে আনন্দের আতিশয্যে শূন্যে লাফিয়ে উঠলেন সাব্বির রহমান। এই সেঞ্চুরির পর যদিও দল যেতেনি। কিন্তু সাব্বিরের এই সেঞ্চুরিতে ভর করেই বড় লজ্জা এড়িয়েছে টাইগারররা। শেষ পর্যন্ত সাব্বিরের চোখ ধাঁধানো ইনিংসটি থেমেছে ১০২ রানে। পুল করতে গিয়ে টিম সাউদির ফিরতি ক্যাচ হয়ে ফেরেন তিনি। 

ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের ১১০ বলের ইনিংসটি ছিল ১২টি চার আর ২টি ছক্কায় সাজানো। সাব্বির রহমানের ওয়ানডে অভিষেক ২০১৪ সালের ২১ নভেম্বর, চট্টগ্রামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। এখন পর্যন্ত ৫৭টি ওয়ানডে খেলেছেন। ৫টি ফিফটি থাকলেও ছিল না কোনো সেঞ্চুরি। গতকাল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে কঠিন কন্ডিশনে দাঁড়িয়ে নিজের সেই আক্ষেপ ঘুচালেন তিনি। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার অনুরোধে নিউজিল্যান্ড সফরের দলে জায়গা করে নেন মারকুটে এই ব্যাটসম্যান। নিজেকে প্রমাণ করতে না পারলে নিশ্চয়ই সমালোচকরা আরও বেশি পেয়ে বসতেন! সাব্বির ঠিক দলে ফিরলেন। অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিলেন ব্যাটেই। সেটাও আবার নিউজিল্যান্ডের বিরূপ কন্ডিশনে। যেখানে তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীমের মতো অতি নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানরাও টানা তিন ম্যাচে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন। প্রস্তুতি ম্যাচে ৪০ রানের ইনিংস। এরপর সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে সুযোগ পেয়ে করেছিলেন মাত্র ১৩। কিন্তু পরের ম্যাচেই দলের বিপদের মুখে ৪৩ রানের দায়িত্বশীল এক ইনিংস বের হয়ে আসে সাব্বিরের ব্যাট থেকে। ডানেডিনে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে বোধ হয় নিজেকেই ছাড়িয়ে যাওয়ার সংকল্প নিয়ে  নেমেছিলেন সাব্বির। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরিটা করলেন পাহাড়সমান চাপের মুখে দাঁড়িয়ে। ১১০ বলে ১২ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় করলেন ১০২ রান। দলের বিপর্যয়, তাকে নিয়েও সমালোচনা। ডানেডিনে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে একসঙ্গে দ্বিমুখী চাপকে জয় করলেন সাব্বির। সেঞ্চুরির পর তার উদযাপনটাও তাই ছিল দেখার মতো। ব্যাট উঁচুতে তুলে আনন্দের আতিশয্যে শূন্যে লাফিয়ে উঠলেন সাব্বির রহমান। তারপর মাঠে সেজদা দিলেন। ব্যাট উঁচু করে ধরে হাত দিয়ে কি যেন ইশারা করলেন। দেখে যতটুকু মনে হয়েছে, ব্যাট কথা বলেছে-এমন বার্তাই বোধ হয় সমালোচকদের উদ্দেশ্যে দিলেন সাব্বির। এবার তো তাদের মুখ বন্ধ করার সময় এসেছে!

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ