শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

টেলিটকের মাধ্যমেই ফাইভ-জি শুরু হবে -প্রযুক্তি মন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : টেলিটকের মাধ্যমেই ফাইভ-জি প্রযুক্তি শুরু করার কথা জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। গতকাল শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল খেলার মাঠে টেলিটক আন্তবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
 মোস্তাফা জব্বার বলেন, সরকারের চলতি মেয়াদের মধ্যেই টেলিটককে দেশের ১ নম্বর মোবাইল ফোন অপারেটর হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হবে। তথ্যপ্রযুক্তি দুনিয়ার বিস্ময়কর আবিষ্কার ফাইভ-জি প্রযুক্তি টেলিটকের মাধ্যমেই শুরু হবে।
মন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তি ও বিনিয়োগসহ টেলিটককে অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে আমাদের সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বিপ্লবে বাংলাদেশকে বৈশ্বিক নেতৃত্বের জায়গায় পৌঁছে দিয়েছেন। তারই নেতৃত্বে আমরা টেলিটকের বিদ্যমান প্রতিটি চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে সক্ষম হবই। তিনি আরও বলেন, সরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে টেলিটককে মানুষের প্রত্যাশার জায়গায় নিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।
পঞ্চম প্রজন্মের ইন্টারনেট বা ফাইভ-জি প্রযুক্তির মাধ্যমে বর্তমানের তুলনায় ১০ থেকে ২০ গুণ বেশি গতির ইন্টারনেট পাওয়া যাবে। এতে অনেক দ্রুত গতিতে ইন্টারনেটের তথ্য ডাউনলোড এবং আপলোড করা যাবে। যার সেবার আওতা হবে ব্যাপক।
ফাইভ-জি আসলে রেডিও তরঙ্গের ব্যবহার আরও বেশি নিশ্চিত করবে এবং একইসময় একই স্থানে বেশি মোবাইল ফোন ইন্টারনেটের সুবিধা নিতে পারবে। সরকারের চলতি মেয়াদের মধ্যেই টেলিটককে দেশের নম্বর ওয়ান মোবাইল ফোন অপারেটর হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘প্রযুক্তি ও বিনিয়োগসহ টেলিটককে অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে। সরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে টেলিটককে মানুষের প্রত্যাশার জায়গায় নিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।’
ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী টেলিটকের গ্রাহকসেবার মানোন্নয়নে সংশ্লিষ্ট লোকজনকে আরও তৎপর হওয়ার আহ্বান জানান। সমন্বয়ের মাধ্যমে টেলিটকের চলমান উন্নয়নের কাজ দ্রুততার সঙ্গে শেষ করার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি। অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র হিসেবে মোস্তাফা জব্বার ক্যাম্পাসের স্মৃতি রোমন্থন করেন। পারস্পরিক যোগাযোগ বৃদ্ধি এবং মানসিক ও শারীরিক উৎকর্ষ বৃদ্ধিতে খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি। সপ্তমবারের মতো অনুষ্ঠিত আন্তবিভাগ টুর্নামেন্টে টেলিটকের মার্কেটিং ও প্রজেক্ট বিভাগকে হারায় সেলস অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন বিভাগ। টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে এই বিভাগ। অনুষ্ঠানে টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শাহাবুদ্দীন এবং জগন্নাথ হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ওয়াসিম সরকার বক্তব্য উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রী চ্যাম্পিয়ন দলের হাতে ট্রফি তুলে দেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ