সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০
Online Edition

প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ কেজরিওয়াল সরকার

১৩ ফেব্রুয়ারি, পার্সটুডে : ভারতের দিল্লীর বিভিন্ন মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের বর্ধিত বেতন দিতে ব্যর্থ হল অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নেতৃত্বাধীন আম আদমি পার্টির সরকার। গত ২৩ জানুয়ারি দিল্লি ওয়াকফ বোর্ডের এক সভায় রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে ওয়াকফভুক্ত মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের জন্য বেতন বৃদ্ধি করে যথাক্রমে ১৮ হাজার ও ১৬ হাজার করা হয়েছিল। এছাড়া অন্যান্য মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের জন্য যথাক্রমে ১৪ হাজার ও ১২ হাজার টাকা করে দেয়ার কথা ঘোষণা করা হয়। জানুয়ারি মাসের বর্ধিত বেতন ফেব্রুয়ারিতে সংশ্লিষ্টদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে দেওয়ার কথা ছিল। যদিও তা বাস্তবায়িত হয়নি। দিল্লিতে ওয়াকফ বোর্ডের অধীনে প্রায় দুইশ’ মসজিদ রয়েছে। এছাড়া আরও প্রায় দেড় হাজার মসজিদ রয়েছে।

দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালের উপস্থিতিতে দিল্লি ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান বিধায়ক আমানতুল্লাহ খান ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সামনে সেই সময় বলেছিলেন, ‘আমরা আগে ইমামদের ১০ হাজার টাকা করে দিতাম তা বাড়িয়ে ১৮ হাজার করা হয়েছে। মুয়াজ্জিনরা যে ৯ হাজার টাকা পেতেন তা বাড়িয়ে ১৬ হাজার টাকা করা হয়েছে। জানুয়ারি মাসের বর্ধিত বেতন ফেব্রুয়ারিতে সংশ্লিষ্টদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে দেয়া হবে। যারা ওয়াকফ বোর্ডের অধীনস্থ ইমাম নন এমন কমপক্ষে এক হাজার পাঁচশ’ মসজিদ আছে গোটা দিল্লিতে। এসব মসজিদের ইমামকে ১৪ হাজার ও মুয়াজ্জিনকে ১২ হাজার টাকা করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ফেব্রুয়ারিতে তা বাস্তবায়ন হবে।’

এই বৈঠকেই ইমাম-মুয়াজ্জিনদের বেতন বৃদ্ধির ঘোষণা দেয়া হয়। যদিও গণমাধ্যম সূত্রে প্রকাশ, ওয়াকফ বোর্ড বেতন বৃদ্ধি অনুমোদন করলেও দিল্লি ওয়াকফ বোর্ডের সিইও এ সংক্রান্ত ফাইল রাজ্য সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগে পাঠিয়ে দিলে নানা কারণে সেখানেই তা আটকে রয়েছে। ওয়াকফ বোর্ডে বরাদ্দকৃত সরকারি অর্থ থেকে ইমাম-মুয়াজ্জিনদের বর্ধিত বেতন দেয়া হলে বিষয়টি আদালতে পৌঁছলে বিড়ম্বনা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। ফলে, বেতন বৃদ্ধির ওই ঘোষণা কার্যত এখন কেজরিওয়াল সরকারের পক্ষে গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী বেতন বাড়ানোর জন্য দিল্লি সরকার ও দিল্লি ওয়াকফ বোর্ডের ওপরে অনেক চাপ রয়েছে। কিন্তু সরকারি ঘোষণার সুবিধা কেবল ওয়াকফ ভুক্ত মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনরা পেতে পারেন, অন্যরা নয় বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন। যদিও কবে থেকে বর্ধিত বেতন দেয়া হবে তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ