বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ওদের ধর্মগ্রন্থ পাঠে মনোযোগী হওয়া উচিত

বর্তমান সভ্যতায়, বিশ্বব্যবস্থায় মানুষ যেন স্বাভাবিক কথাবার্তা বলতে ভুলে গেছে। অতিকথন তো আছেই, ভুল কথারও ছড়াছড়ি। আর অন্যায় ও অমানবিক কর্মকাণ্ডের তো অভাব নেই। সাধারণ পুলিশ থেকে প্রেসিডেন্ট, রাজনৈতিক কর্মী থেকে নেতা- সবাই অনেক কিছু হয়ে গেলেও মানুষ হতে যেন ভুলে গেছেন। এমন বাতাবরণে এখন এক অদ্ভুত দর্শনে মা-বাবার বিরুদ্ধে মামলা করতে চাইছেন সন্তান।
বিবিসি পরিবেশিত খবরে বলা হয়, ভারতে রাফায়েল স্যামুয়েল নামের এক যুবক মা-বাবার বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়েছেন। জন্ম দেওয়ার আগে মা-বাবা কেন তার অনুমতি নিলেন না- এই অভিযোগে তিনি মামলা করবেন। রাফায়েল মুম্বাইয়ের বাসিন্দা। বয়স ২৭ বছর। পেশায় ব্যবসায়ী তিনি। তার ভাষ্য, সন্তানকে পৃথিবীতে আনাটাই ভুল। কারণ, মানুষকে জীবনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়। যুবকের যুক্তি, ‘যেহেতু জন্মের সময় আমাদের অনুমতি নেওয়া হয়নি, কাজেই জীবন ধারণের জন্য আমাদের অর্থ দিতে হবে।’ কম যান না রাফায়েলের মা-বাবাও। পেশায় তারা দু’জনই আইনজীবী। এক বিবৃতিতে রাফায়েলের মা কবিতা করনাদ স্যামুয়েল বলেন, ‘আমাকে অবশ্যই আমার সন্তানের হঠকারী সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হবে। জন্মের আগে সন্তানের কাছ থেকে কীভাবে অনুমতি নিতে হয় তার যৌক্তিক ব্যাখ্যা যদি রাফায়েল দিতে পারে, তাহলে আমি আমার ভুল স্বীকার করে নেব।’
১. তালগোল বেধেছে আসলে রাফায়েলের জীবন দর্শনে। তিনি প্রজননবিরোধী (অ্যান্টি-নাটালিজম) দর্শনে বিশ্বাসী। এই দর্শন মতে, জীবন দুঃখ-দুর্দশায় পরিপূর্ণ। কাজেই মানুষের উচিত এখনই সন্তান জন্ম বন্ধ করে দেওয়া। রাফায়েলের মতে, ‘সন্তান জন্ম বন্ধ করে দিলে এক সময় এই পৃথিবী থেকে মানুষ বিলুপ্ত হয়ে যাবে, যা এই গ্রহের বাকি বাসিন্দাদের জন্য মঙ্গলজনক হবে। মানুষ বিলুপ্ত হলে এই পৃথিবী ও বাকি প্রাণীদের জীবন সুন্দর হবে।’ রাফায়েলের দর্শন বেশ অদ্ভুত। তিনি বাকি প্রাণীদের সুন্দর জীবনের কথা ভাবতে পারলেও শ্রেষ্ঠ প্রাণী মানুষের সুন্দর জীবনের কথা ভাবতে পারেননি। রাফায়েল আসলে হতাশাগ্রস্ত এবং বিভ্রান্ত। এখন উপলব্ধি করা যায়, কেন ধর্মে হতাশ হওয়া নিষিদ্ধ। অনেক রাষ্ট্রপ্রধানও এখন আবোল-তাবোল বলছেন। তাদের সবারই এখন ধর্মগ্রন্থ পাঠে মনোযোগী হওয়া উচিত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ