শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

কলঙ্ক আঁকার জন্য ডাকসু নির্বাচন -হাফিজ

স্টাফ রিপোর্টার: ছাত্র নির্বাচনে একটি কলঙ্ক আঁকার জন্য ডাকসু নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রম।
গতকাল সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তির দাবিতে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত এক প্রতিবাদ সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। সংগঠনের উপদেষ্টা সাঈদ আহমেদ আসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এম জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সভায় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমত উল্লাহ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা শুয়াইব আহমেদ, কৃষকদল নেতা শাহজাহান মিয়া সম্রাট, জিয়া নাগরিক ফোরামের (জিনাফ) সভাপতি লায়ন মিয়া মো. আনোয়ার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
হাফিজ বলেন, ভোট কারচুপি করার জন্য ডাকসু নির্বাচনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে ঢকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। (ঢাবি ক্যাম্পাসে) একমাত্র সরকারি দলের ছাত্র সংগঠন ছাড়া অন্য কোনো ছাত্র সংগঠনের সহাবস্থান নেই। কাজেই অন্যরা এই নির্বাচনে ভোট দিতে যেতে পারবে না।
তিনি আরও বলেন, সরকারি দলের ছাত্র সংগঠন ছাড়া অন্য সকল ছাত্র সংগঠন দাবি করেছিল যে, একাডেমিক ভবনে ভোটগ্রহণ করা হোক, ছাত্ররা যেহেতু হলে প্রবেশ করতে পারবে না সেহেতু হলে যেন ভোটগ্রহণ করা না হয়। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রদের এই দাবির প্রতি কোনো সম্মান দেখায়নি। তারা পূর্বপরিকল্পিত ছক মেনে হলে নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে যাচ্ছেন। যাতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে ভোট দিতে যেতে না পারে। সরকারের সমালোচনা করে বিএনপি নেতা বলেন, এই ভোট ডাকাতির সরকার বিশ্ব রেকর্ড করেছে। সংসদ নির্বাচন হোক, উপজেলা নির্বাচন হোক আর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন হোক যেকোনো নির্বাচনে তারা এই ডাকাতি করেছে। হাফিজ বলেন, বাংলাদেশে যত ধরনের অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে, ভালো করে খুঁজে দেখলে দেখা যাবে সেখানে কোনো না কোনো ছাত্রলীগ নেতা জড়িত আছে। এ অবস্থায় ডাকসু নির্বাচন সুষ্ঠু হবে এটা আমরা মনে করি না। দীর্ঘদিন পরে ছাত্র নির্বাচনে একটি কলঙ্ক আঁকার জন্য ডাকসু নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বর্তমান সরকার এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কারচুপি ছাড়া অন্য কিছুতে যাবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ