রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০
Online Edition

পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় খুলনা ওয়াসার দু’টি আঞ্চলিক কার্যালয়ের কার্যক্রম শুরু 

খুলনা অফিস : পানির সেবা জনগণের দৌড় গোড়ায় পৌঁছিয়ে দিতে আড়াই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে খুলনা ওয়াসার পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত দু’টি আঞ্চলিক কার্যালয়ের কার্যক্রম বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে। ফলে এলাকার জনগণ ওই দু’টি কার্যালয় থেকেই নতুন সংযোগ প্রদানসহ সকল সমস্যার সমাধান পাবেন। এতে সংস্থাটির সেবার বৃদ্ধি পাবে। প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ইতোমধ্যেই নগরীর সাত নম্বর ঘাট এলাকায় রেলওয়ের জমিতে পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতাধীন ওয়াসার ১০ তলা ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট প্রধান ভবনের নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়। ওই ভবনে বর্তমান দাপ্তরিক কার্যক্রম চলছে। এছাড়া চার কোটি টাকা ব্যয়ে মহেশ্বরপাশা ও চরেরহাট এলাকায় দু’টি জোনাল বিল্ডিং নির্মাণের কাজও সম্পন্ন হয়েছে। আজ ওই দু’টি আঞ্চলিক কার্যালয়ে কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। ফলে এখন থেকে নতুন কার্যালয়ে সংযোগ প্রদানসহ সকল সমস্যার সমাধান মিলবে। মহেশ্বরপাশায় কার্যালয়ে সেবা পাবেন নগরীর ১, ২, ৩, ৪ ও ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। এ কার্যালয়ে আঞ্চলিক কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল আলম সরদার।  চরেরহাট কার্যালয়ে সেবা পাবেন ৭, ৮, ৯, ১০, ১১, ১২, ১৩, ১৪ ও ১৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। এ কার্যালয়ে দায়িত্ব পালন করবেন ইঞ্জিনিয়ার মো. আশেকুর রহমান। এছাড়া ১৬, ১৭, ১৮, ১৯, ২০,২১, ২২, ২৩, ২৪, ২৫, ২৬, ২৭, ২৮, ২৯, ৩০ ও ৩১ ওয়ার্ডের বাসিন্দারা পুরানো অর্থাৎ যশোর রোডের কার্যালয় থেকেই সেবা পাবেন। প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, খুলনা শহরের সুপেয় পানির সঙ্কট দীর্ঘদিনের। এ সঙ্কট নিরসনের লক্ষে এই অঞ্চলের ‘সবচেয়ে বড়’ এই প্রকল্পের কাজ হাতে নেওয়া হয়। আগামী মার্চে এ প্রকল্পের পানি সরবরাহ শুরু হবে। প্রথমে সরবরাহ হচ্ছে নগরীর লবণচরা জোনে। পরবর্তীতে বাকী ৯টি জোন নতুন বাজার, বানিয়াখামার, ছোট বয়রা, বয়রা, নতুন রাস্তা, চরের হাট, দেয়ানা, মিলেরডাঙ্গা ও রায়েরমহলে পর্যায়ক্রমে এ পানি সরবরাহ করা হবে। তাই এ প্রকল্পের সকল কার্যক্রম সঠিকভাবে পরিচালনার জন্য এ দু’টি কার্যালয় চালু করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, বৃহস্পতিবার থেকে কার্যালয় নতুন দু’টি চালু হয়েছে। এবার এলাকার জনগণ নিজ এলাকার কাছেই সেবা পাবেন। ফলে পানি সংক্রান্ত সকল সেবা মানুষের দৌড় গোড়ায় পৌঁছে যাচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ