বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সখিপুরে এক তরুণকে অপহরণ ও হত্যার চেষ্টা॥ আটক ৪

সখিপুর (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতা : টাঙ্গাইলের সখিপুর কালমেঘা এলাকার এক তরুন মাসুদ রানা(২০)কে তার বন্ধুরা অপহরণ করে মারধোর ও হত্যার চেষ্টায় অপহরকারীদের ব্যবহৃত গাড়ী সহ চার অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেছে সখিপুর থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সন্ধ্যায় কালমেঘা-বাটাজোর সড়কে। অপহৃত মাসুদ রানা কালমেঘা গ্রামের আব্দুল বাতেনেরে ছেলে। গ্রেফতারকৃতরা হলো-সখিপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের নাছির উদ্দিনের ছেলে মো.জয়(২০),বাবুল মিয়ার ছেলে মাসুদ রানা(২০),গাড়ীর চালক পৌর ৭ নং ওয়ার্ডের  যতিন কোচের ছেলে বিষ্ণু কোচ(২২)উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নরে বানিয়ারসিট গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে শাহীন আলম(২১)। সখিপুর থানা পুলিশ সোমবার গ্রেফতারকৃতদের ৫দিনের রিমান্ড চেয়ে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠালে বিজ্ঞ আদালত চালক ছাড়া বাকী তিনজনের দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।  গাড়ীর চাকায় পিষ্ট হয়ে  দুই পা ভাঙ্গা অবস্থায় গুরুতর আহত মাসুদকে এলাকার লোকজন রোববার রাতেই উদ্ধার করে সখিপুর হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা রেফার্ড করেন। সোমবার সকালে গুরুতর আহত মাসুদের চাচা হাতেম আলী বাদী হয়ে চালকসহ চারজনকে আসামী করে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টা মামলা দায়ের করে। মামলার এজাহারে জানা যায়,রোববার বিকালে আত্মীয়ের বাড়ি বেড়ানোর কথা বলে আসামী তিনজন একটি মাইক্রেবাস ভাড়া করে এবং কালমেঘা পৌছার পর মো.জয় তাদের পরিচিত মাসুদকে ফোনে কালমেঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আসতে বলে। সেখান থেকে মাসুদকে মাইক্রোতে তুলেই পাওনা ৯ হাজার টাকা দিতে বলে রড দিয়ে পিটাতে থাকে এবং কিল ঘুষি মারতে থাকে। মাসুদের চিৎকারে আশ পাশের লোকজন মাইক্রোবাসটি আটকানোর চেষ্টা করে। এ সময় দুস্কৃতিকারীরা মাসুদকে গাড়ীর জানালা দিয়ে ফেলে দিয়ে উপর দিয়ে গাড়ী চালালে চাকায় পিষ্ট হয়ে তার দুই পা ভেঙ্গে যায়। গাড়ীটি পালানোর চেষ্টা করলে সখিপুরের সীমান্তবর্তী এলাকা ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাটাজোর বাজারের লোকজন আটক করে সখিপুর থানা পুলিশকে খবর দেয়। সখিপুর থানা পুলিশ রোববার রাত ১০টায় গাড়ী (ঢাকা মেট্রো গ ৩৩-১৮৯৮)গাড়ীর চালকসহ ওই তিন অপহরণকারী ও হত্যা চেষ্টার আসামীদের গ্রেফতার করে নিয়ে আসে। সখিপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মো.আমির হোসেন বলেন,অধিকতর তদন্তের জন্য আসামী তিনজনকে দুই দিনের রিমান্ডে আনা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ