মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০
Online Edition

ভোলাহাট উপজেলায় ৯ জন শীর্ষ কর্মকর্তার পদ শূন্য

সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ বাধাগ্রস্ত

ভোলাহাট (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) সংবাদদাতা: ভোলাহাট উপজেলার ৯টি সরকারি দপ্তরের ৯ জন শীর্ষ কর্মকর্তার পদ শূণ্য রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। এ’ছাড়াও  অনেক দপ্তরে ছোট পদগুলো শূণ্য থাকায় সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে বলে জানা গেছে। দ্রুত সরকারের উন্নয়ন গতিশীল করতে শূণ্য পদগুলো পূরণের দাবী উপজেলাবাসির। বিভিন্ন অফিসে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলা ভূমি  অফিসে ২৪ বছর পর সহকারী কমিশনার( ভূমি) পদটি পূরণ হলেও ক’মাসের মধ্যে ২জন সহকারী কমিশনার(ভূমি) যোগদানের পর পর অন্যত্রে বদলি হয়ে যান। সরকারের গুরুত্বপূর্ণ এ দপ্তরের ভার পড়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের উপর। এক ব্যক্তি দু’দপ্তরের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে পড়েন চরম বেকায়দায়। ফলে উন্নয়ন কাজ ব্যহত হয় সংগত কারণে। এদিকে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসে প্রকল্পবাস্ত বায়ন কর্মকর্তাও নেই দীর্ঘদিন ধরে। এ দপ্তরের দায়িত্বে আছে শিবগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা। তিনি নিজ দায়িত্বের উপজেলার কাজ শেষ করে মন মত সময়ে ভোলাহাট উপজেলায় দীর্ঘদিনের কাজ শেষ করেন। অথবা শিবগঞ্জ উপজেলা গিয়ে অফিসের ফাইলপত্র সই করে অফিসের কাজ করতে হয়। উপজেলা হিসাব রক্ষক কর্মকর্তা, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা, আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা, প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, পরিসংখ্যান কর্মকর্তা, বরেন্দ্র উন্নয়নের সহকারী প্রকৌশলী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তার পদ দীর্ঘদিন ধরে রয়েছে শূণ্য। এ সব দপ্তরের কর্মকর্তা না থাকায় দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ কেউ রয়েছেন গোমস্তাপুর উপজেলার কেউ বা শিবগঞ্জ উপজেলার। এ সব দপ্তরের কাগজপত্রের ফাইল ব্যাগে বন্দী করে উল্লেখিত দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে নিয়ে গিয়ে ফাইল সই করাতে হয়। এদিকে উপজেলার বিভিন্ন অফিসে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীদের পদও রয়েছে শূণ্য ফলে অফিসের কাজ চলে জোড়া তালি দিয়ে। সরজমিন ভোলাহা উপজেলা শিক্ষা অফিসে গিয়ে দেখা যায় এম দৃশ্য। এ অফিসে ৮টি অনুমোদিত পদ থাকলেও কর্মরত আছে মাত্র ৫ জন ৩ জন শূণ্য রয়েছে। সহকারী শিক্ষা অফিসার রয়েছে ৩ জনের মধ্যে ২ জন, উচ্চমান সহকারী ১ জন ও হিসাব রক্ষক ১ জন পদ শূণ্য রয়েছে। অপরদিকে ভোলাহাট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসেও ৫ জন অনুমোদিত পদের মধ্যে ৩টি পদ শূণ্য বলে কর্মকর্তাগণ জানান। এভাবে দেশের শেষ প্রান্তের উপজেলা ভোলাহাটে শীর্ষ থেকে ৩য় ও ৪র্থ পদের কর্মকর্তা কর্মচারী শূণ্য থাকলে উন্নয়নের ধারা থমকে যাবে বলে বিশেষজ্ঞ মহল মনে করেন। তারা মনে করেন যে উপজেলায় এতোগুলো পদ শূণ্য সে উপজেলায় রাষ্ট্রিয় সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। এদিকে সারা দেশ যখন উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছে ঠিক তখনি প্রত্যন্ত অঞ্চল হিসেবে ভোলাহাট উপজেলা কর্মকর্তা কর্মচারীদের শূন্যতায় অফিসগুলো থেকে নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত হচ্ছে ভোলাহাটে বসবাসিকারী নাগরিকেরা। সুশিল সমাজের দাবী  দ্রুত ভোলাহাট উপজেলার দপ্তরগুলোতে কর্মকর্তা-কর্মচারীর শূণ্য পদগুলো পূরণ করে ভোলাহাটবাসির নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি করার দাবী করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ