শুক্রবার ২৯ মে ২০২০
Online Edition

নারায়ণগঞ্জে ৪৮ ঘন্টায় তিন শিশুসহ চার ধর্ষণ

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা: সম্প্রতি ধর্ষণের ঘটনা বেড়েই চলছে। জেলার থানাগুলোতে জমা পড়ছে একের পর এক ধর্ষণের অভিযোগ। বেশিরভাগই শিশু কিংবা কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। বাদ যাচ্ছে না প্রতিবন্ধী নারী কিংবা শিশু। গত দুইদিনে মাত্র ৪৮ ঘন্টার ব্যবধানে জেলায় ৪টি ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী চার জনের মধ্যে তিনজনেরই বয়স ১৮ বছরের নিচে। আর একজন বাক প্রতিবন্ধী। চারটি ঘটনাই জেলায় বেশ আলোচিত হয়েছে।

রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের ছাতিয়ান এলাকায় নানা বাড়িতে বেড়াতে আসা

নবম শ্রেণির এক ছাত্রী অস্ত্রের মুখে ধর্ষণের শিকার হয়। গত শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বাদী হয়ে কেরানিগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের কারারক্ষী মৃদুল হাসানকে প্রধান আসামী করে তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। এদিকে অভিযুক্তকে রবিবার গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জানা যায়, কারারক্ষী মৃদুল হাসানও ছুটিতে রূপগঞ্জ বেড়াতে আসেন। পরদিন শনিবার দুপুরে বন্দরে এক শিশু গৃহপরিচারিকা মধ্য বয়সী এক রাজমিস্ত্রি কর্তৃক ধর্ষিত হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়। উপজেলার কলাগাছিয়ার সেলসারদী এলাকায় বিস্কুট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৪৫ বছর বয়সী আব্দুর রহিম ওরফে বিশু ওই গৃহপরিচারিকাকে ধর্ষণ করে এমন অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তারও করেছে বন্দর থানা পুলিশ।

শনিবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জে আরেকটি ধর্ষণের খবর পাওয়া যায়। সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার এক বাক প্রতিবন্ধী নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে খবর পাওয়া যায়। ভুক্তভোগী নারী ভাইয়ের বাড়িতে যাবার পথে জোরপূর্বক এক নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত ২২ বছর বয়সী যুবক হৃদয়। ঘটনাটি জানাজানি হয়ে গেলে এলাকাবাসী অভিযুক্তকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় ওই নারীর ভাই বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। একই দিন সন্ধ্যায় ফতুল্লায় চিতই পিঠা খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৯ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণ করেছে ৬৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তি এমন অভিযোগ পাওয়া যায়। ফতুল্লার শাহীবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত মো. শাহ্জাহানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সে ওই এলাকায় চিতই পিঠা বিক্রি করতো বলে জানা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ