সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

ফেসবুকে শিক্ষিকা-ছাত্রীদের আপত্তিকর ছবি জাবির ১১ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

সংগ্রাম ডেস্ক : ফেসবুকে শিক্ষিকা-ছাত্রীর আপত্তিকর ছবি উপস্থাপন, অশ্লীলতা ও নিপীড়নের ঘটনায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) একই বিভাগের ১১ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার ও অর্থ জরিমানা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকাল বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়। শীর্ষকাগজ
আদেশে বলা হয়, মাইক্রোবায়োলোজি বিভাগের ৪৫তম ব্যাচের ১৬ জন ও ৪৩তম ব্যাচের এক ছাত্রীর আনা অশ্লীলতা ও নিপীড়নের অভিযোগের ঘটনায় কমিটির তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে একই বিভাগের ১১ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করা হয়েছে।
৪৫তম ব্যাচের মো. নাঈম-ই-আক্তার, ইজাজ আহমেদ, মো. মেহেদী হাসান ও মো. ইকবাল হোসেনকে ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বহিষ্কার ও ৫ হাজার টাকা আর্থিক দণ্ড দেয়া হয়েছে।
একই ব্যাচের মো. সজিব হোসাইন, মো. আল-আমিন শৈশব, মো. আবু নাঈম ও জি এম তারিকুল ইসলামকে ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার ও ৫ হাজার টাকা আর্থিক দণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে মো. শাহরিয়ার খানকে তিন মাসের জন্য বহিষ্কার ও ৫ হাজার টাকা আর্থিক দণ্ড এবং নাহিদুল ইসলাম ও মো. ওমর ফারুককে তিন মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।
জানা যায়, মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ৪৫তম ব্যাচের ১২ জন শিক্ষার্থী একটি ফেসবুক গ্রুপ খোলে। সেই গ্রুপে একই বিভাগের শিক্ষিকা ও বিভাগের ছাত্রীদের আপত্তিকর ছবি আপলোড দেয়। একইসঙ্গে গোপনে তোলা এসব ছবির সঙ্গে অশালীন মন্তব্য করে তারা। পরবর্তীতে গ্রুপটির কথা শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে জানাজানি হলে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিচার দাবি করে ১৭ ছাত্রী গত ২৬ নভেম্বর অভিযোগ দেন বিভাগীয় সভাপতির কাছে।
অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ওই দিনই ঘটনা তদন্তের জন্য বিভাগের অধ্যাপক মো. হাসিবুর রহমানকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। পরে তদন্ত রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের ৩০৪তম সভায় তাদের এ শাস্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত হয় বলে জানান রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ