শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

মণিরামপুরে হত্যার শিকার ইয়াসমিনের লাশ উত্তোলনের জন্য আদালতের নির্দেশ

মণিরামপুর (যশোর) সংবাদদাতা, ২৮ জানুয়ারি : মণিরামপুরের ফেদাইপুর গ্রামে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার ইয়াসমিনের লাশ ময়না তদন্তের জন্য দেড় মাস পর কবর থেকে উত্তোলণের আদেশ হয়েছে। যশোরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রেট নুসরাত জাবীন নিম্মী’র আদালত থেকে গত বৃহষ্পতিবার এই আদেশ হয়। ঘটনার সাথে জড়িত কেউ এখনও আটক হয়নি। জানাযায়, উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের ফেদাইপুর গ্রামের থ্রি-হুইলার চালক মতিয়ার রহমানের স্ত্রী ২সন্তানের জননী ইয়াসমিনকে ১০ ডিসেম্বর রাত থেকে পরদিন ভোর রাতের যেকোন সময় হত্যা করে তার লাশ সীমানা বেড়ার তারের সাথে ঝুলিয়ে রাখা হয়। পরিবারের অভিযোগ তাকে বাড়ী থেকে কৌশলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনা আড়াল করার জন্য গলায় ওড়না পেঁচিয়ে তার লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়। নিহতের জা (ভাসুরের স্ত্রী) শামছুণ নাহার জানান, ইয়াসমিনের মৃত দেহের পা মাটিতে ছিল। মাথার চুলে পাতাসহ বিভিন্ন ধরনের আবর্জনা ছিল। তার গলার বাম পাশে আঙ্গুলের ছাপ ছিল। গোসলের সময় পরণের কাপড়-চোপড়ে ধর্ষণের আলামত দেখা যায়। নিহতের বড় কন্যা তুলি জানায়, তার মা রাতের খাবার রান্না করছিল। ওই সময়ে প্রতিবেশি বুলবুল খাঁ-তার মাকে ডেকে নিয়ে যায়। সে জোরালো ভাবে অভিযোগ করে জানায়, তার মাকে হত্যা করা হয়েছে। মশিয়ারের স্ত্রী শাবানার অভিযোগ ইয়াসমিনকে বুলবুল ডেকে নিয়ে হত্যা করেছে।
এদিকে আলোচিত এই হত্যার ঘটনা ১ মাস পর আদালতে মামলা হয়। যার সিআর নং-১৯/১৯। মামলাটি আদালতের নির্দেশে মণিরামপুর থানায় এজাহারভূক্ত হয় ২১ জানুয়ারী। যার মামলা নং-১৬(১)১৯। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিযুক্ত হয়েছে এসআই খান আব্দুর রহমান। তিনি বলেন, নিহত ইয়াসমিনের লাশ ওই সময় ময়না তদন্ত ছাড়াই দাফন করা হয়। বাদীর অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত হওয়ার জন্য কবর থেকে ওই লাশ উত্তোলন করে ময়না তদন্ত করার প্রয়োজন হয়ে পড়েছে। এজন্য তার আবেদনের প্রেক্ষিতে গত বৃহষ্পতিবার আদালত থেকে এই লাশ উত্তোলনের আদেশ হয়েছে। ম্যাজিট্রেট নিযোগ হওয়া মাত্রই লাশটি কবর থেকে উত্তোলন করা হবে। এজন্য দাপ্তরিক কাজ চলছে। আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে লাশটি উত্তোলন করা হবে বলে তিনি আশা করছেন। ময়না তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর আসামী আটকের তৎপরতা চালানো হবে বলে তিনি জানান। মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবি তাজ হোসেন তাজু জানান, রাষ্ট্রীয়ভাবে উত্তোলনের জন্য আদালত থেকে আদেশ হয়ে ম্যাজিস্ট্র্রেট নিয়োগের কার্যক্রম চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ