শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

ইটের ট্রাক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে তুরাগে, নিহত ৪

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকার আশুলিয়ায় একটি ট্রাক ইটভাটা থেকে বের হওয়ার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তুরাগ নদীতে পড়ে চালক ও ভাটার নিরাপত্তা প্রহরীসহ চারজন নিহত হয়েছেন; আহত হয়েছেন তিনজন।
আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ জানান, গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে মরাগাঙ্গ এলাকার বাইপাইল-আব্দুল্লাহপুর সড়কে এ দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহতরা হলেন- ট্রাক চালক শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার মুজাহিদ হোসেন (২৫), একই এলাকার শ্রমিক শাহীন (৩৫), শ্রমিক আরিফ (২৬) ও ভাটার নিরাপত্তা প্রহরী আব্দুল কাদের (৪০)। দুর্ঘটনার পর প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে ট্রাকটি উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস। এ ঘটনায় আহতদের উত্তরার ইস্ট ওয়েস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ইটভাটার শ্রমিকরা জানান, মরাগাঙ্গ এলাকার একটি ইটভাটা থেকে বের হওয়া সময় ইট বোঝাই ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশের তুরাগ নদীতে পড়ে তলিয়ে যায়। এ সময় ট্রাকের ভেতরে চালকসহ চারজন ও উপরে তিনজন ছিলেন। দুর্ঘটনার পর উপরে থাকা তিন শ্রমিক সাঁতরে উঠে আসতে পারলেও বাকিরা ট্রাকের মধ্যে আটকা পড়ে। পরে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট ও দুটি ডুবরি দল গিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে।
শফিকুল বলেন, উত্তরা ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে। কিন্তু ট্রাকটি পানির তলে চলে যাওয়ায় উদ্ধার অভিযানে সমস্যা হচ্ছিল। পরে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের আরও তিনটি ইউনিট গিয়ে তাদের সহায়তা করে।“সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মুজাহিদ ও কাদেরের লাশ উদ্ধার করা হয়; তখনও দুই শ্রমিক নিখোঁজ ছিলেন। দুই ঘণ্টা পর আরিফ ও শাহিনের লাশ পাওয়া যায়।”
উত্তরা ও টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের জোন কমান্ডার মানিকুজ্জামান বলেন, খাদের গভীরতা প্রায় ৪০ ফুট, ঠান্ডা পানি ও কুয়াশার কারণে ট্রাকটি উদ্ধার করতে দেরি হয়েছে। তিনি আরও জানান, ক্রেনের মাধ্যমে চার ঘণ্টার তৎপরতায় বেলা সাড়ে ১১টায় পানির তলদেশ থেকে ট্রাকটি উদ্ধার করতে পারেন তারা। পরে নিখোঁজদের লাশ উদ্ধারের পর অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ