শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

খালেদা জিয়ার বিচার সরকারের প্রভাবমুক্ত রাখাসহ ৫ দফা দাবিতে প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবীদের মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার : সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিচারে সরকার বা রাষ্ট্রযন্ত্রের প্রভাবমুক্ত রাখাসহ পাঁচ দফা দাবিতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে স্মারকলিপি প্রদান করেছে গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তি আইনজীবী আন্দোলন। সংগঠনের কো-চেয়ারম্যান আবেদ রাজা, মহাসচিব এ বি এম রফিকুল হক তালুকদার রাজা ও সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ২টায় প্রধান বিচারপতির একান্ত সচিব মো: ইউসুফ আলীর হাতে এই স্মারকলিপি প্রদান করেন।
প্রধান বিচারপতির কাছে পাঁচ দফা দাবির অন্যান্য দফায় বলা হয়েছে- দেশব্যাপী ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে একই ধারায় গায়েবী মামলা করা হচ্ছে। যার আসামী হিসেবে পঙ্গু, ভিক্ষুক থেকে মৃত ব্যক্তি বাদ যায়নি। গায়েবী মামলাগুলির গ্রহনযোগ্যতা ও আইনের অপ প্রয়োগ হচ্ছে কি না মর্মে একটি বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করার নির্দেশ প্রদান। আগাম জামিন শুনানির জন্য আরো দুটি বেঞ্চ স্থাপন করা। বিনা তদাবিরে উচ্চ আদালতের আদেশ যাতে স্বাভাবিক নিয়মে ৭ কার্যদিবসের মধ্যে পৌছে তার প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান এবং রিট আবেদনের শুনানি অনেক ধীর গতিতে চলছে, এজন্য রিট বেঞ্চের সংখ্যা বৃদ্ধি করা।
স্মারকলিপি প্রদানের আগে আবেদ রাজা বলেন, প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি প্রদানের ৭ দিনের মধ্যে এসব দাবির ব্যাপারে কি পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে দেখব। এ সময়ের মধ্যে কোনো পদক্ষেপ না নিলে আমরা দাবি আদায়ে দুর্বর আন্দোলন গড়ে তুলব।
মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন: এদিকে প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি প্রদানের আগে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিচার বিভাগকে দুর্নীতিমুক্ত করার দাবিতে সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে করেছে সংগঠনটি। গতকাল বেলা ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্ট বারভবনের সভাপতির কক্ষের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সংগঠনের কো-চেয়ারম্যান আবেদ রাজার সভাপতিত্বে সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন, সম্পাদক মাহবুবউদ্দিন খোকনসহ শতাধিক আইনজীবী অংশ নেন।
‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ ব্যানারে গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তি আইনজীবী আন্দোলন আয়োজিত মানববন্ধনে অংশ নিয়ে আইনজীবীরা খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিচার বিভাগকে দুর্নীতি মুক্ত করার দাবিতে শ্লোগান দেন। এতে বক্তব্য রাখেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, সংগঠনের মহাসচিব এ বি এম রফিকুল হক তালুকদার রাজা, ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট আনিছুর রহমান খান, এডভোকেট আইয়ুব আলী আশ্রফী, এডভোকেট ওয়াসেল উদ্দিন বাবু, এডভোকেট শাহীন সুলতানা, এনএলসির সভাপতি জুলফিকার আলী জুনু, মহাসচিব হেমায়েত উদ্দিন বাদশা, এডভোকেট মতিলাল ব্যাপারী, এডভোকেট নাছিরউদ্দিন খান স¤্রাট, এডভোকেট কামাল হোসেন, এডভোকেট আবদুল্লা আল মাহবুব, এডভোকেট শফিউর রহমান শাফ, এডভোকেট নাজমুল হাসন, এডভোকেট আবদুল মতিন মন্ডল, এডভোকেট একেএম মুক্তার হোসেন প্রমুখ। 
মানববন্ধনে সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে সরকার মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যতো মামলা আছে কোনো মামলাই রাজনীতির উর্ধে নয়। তার বিরুদ্ধে সব মামলা রাজনৈতিক মামলা। আমরা বলেছি বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিন। কিন্তু এই সরকার খালেদা জিয়াকে ভয় পায়। এজন্য তারা তাকে শুধু আটকেই রাখে না, বিচার বিভাগের ওপর একের পর এক হস্তক্ষেপ করছে। 
সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, বিচার বিভাগের ওপর হস্তক্ষেপের কারণে ন্যায় বিচার হচ্ছে না। খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়া হয়েছে। অবিলম্বে তাকে মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় আইনজীবীদের সাথে নিয়ে দুর্বর আন্দোলন গোড়ে তোলা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ