বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

রায়গঞ্জে নিমগাছী বাজারে উচ্ছেদ আতঙ্কে ফুটপাত ব্যবসায়ীরা

রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জের নিমগাছী বাজারে উচ্ছেদ আতংঙ্কে দিনাতিপাত করছে ফুটপাত ব্যবসায়ীরা। এ ব্যাপারে রায়গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও তার লোকজন ব্যবসায়ীদের হামলা, মামলাসহ হত্যার হুমকি প্রদান করে আসছে বলে অভিযোগ করেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। সরেজমিনে গিয়ে জান যায়, নিমগাছী মধ্য বাজার হাটচালার ফুটপাতে অর্ধশতাধিক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী অন্তত ৩০ বছর যাবত ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। কিন্তু একটি প্রভাবশালী মহল ঐ ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করে হাটচালাকে ২৪টি কক্ষে রুপান্তর করে ইজারা প্রদান করতে চায়। এরই মধ্যে উচ্চবিত্ত ব্যবসায়ীদের সাথে অগ্রিম কক্ষ বুকিংয়ের জন্য অন্তত অর্ধকোটি টাকার লেনদেনেরও আভাস পাওয়া গেছে। ১৯৯৬ সালে ৯টি হাটচালা নির্মিত হয় এবং তা ২০১৭/১৮ অর্থ বছরে পুন:সংস্কার করা হয়। ২০১৪/১৫ অর্থ বছরে হাট শেটের মাধ্যমে ১৮টি রুম ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও নারী ব্যবসায়ীদের মধ্যে বরাদ্দ দেওয়ার কথা থাকলেও বিত্তশালীরা কোটি টাকার উৎকোচের বিনিময়ে বরাদ্দ নেয়। বরাদ্দকৃত ঘর গুলি অন্য ব্যবসায়ীদের মধ্যে ভাড়া প্রদান করে রম রমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। ক্ষুদ্রব্যবসায়ী নাজমুল ইসলাম স্বাপন পিতা-মৃত এজাব আলী জানান, প্রতিবাদ করতে গেলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তাকে হত্যার হুমকি প্রদান করেন। ব্যবসায়ী সাইদুল ইসলাম পিতা- মৃত আব্দুল মজিদ কবিরাজ বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট থেকে অদ্যবধী সুনামের সহিত এ ব্যবসা করে আসছি এহেন উদ্যোগে আমরা হতাশ। ব্যবসায়ী আবু সায়েম পিতা-আবু বক্কর ক্ষোভের সহিত বলেন, বাপ দাদার ধরে রাখা ব্যবসা ছেড়ে দিতে এখন বাধ্য হতে হচ্ছে। উপস্থিত ১৫/২০ জন ব্যবসায়ী বলেন, রাতের আঁধারে তাদের চৌকি তুলে নেয়া হয়েছে, সাদা ডেমিতে স্বাক্ষর নিয়ে চৌকি ফিরিয়ে নিয়ে ব্যবসা করতে বলছেন চেয়ারম্যানের লোকজন। এভাবে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করে হাটচালা রুমে রূপান্তরিত করলে অর্ধশতাধীক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী বেকার হয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম বিপাকে পড়ার আশংখা বিরাজ করছে। ব্যবসায়ীগণ তাদের পরিবার পরিজনের দূর অবস্থার কথা বিবেচনায় নিয়ে হাটচালা কক্ষে রূপান্তরিত না কারার জন্য রায়গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামীমুর রহমানের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামীমুর রহমান বলেন, হাট-বাজারের নীতিমালা অনুযায়ী এটা দেখা হবে, তবে আমি চাই বেশির ভাগ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে বঞ্চিত করে কতিপয় ব্যবসায়ীকে সুবিধা না দেওয়া। তবে বর্তমান চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা কামাল রিপন বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো সত্য নয়, আমি ব্যবসায়ীদের সুবিধার জন্য রুম করে বরাদ্দ দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছি মাত্র তবে নীতিমালায় না থাকলে তাতো সম্ভব নয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ