বৃহস্পতিবার ০৬ আগস্ট ২০২০
Online Edition

নিখোঁজ ২০ শ্রমিকের সন্ধান এখনো পাওয়া যায়নি

মুন্সীগঞ্জ সংবাদদাতা : মুন্সীগঞ্জের মেঘনা নদীতে শুক্রবার তৃতীয় দিনের মতো ডুবে যাওয়া মাটি বোঝাই ট্রলার ও নিখোঁজ শ্রমিকদের খোঁজে উদ্ধার তৎপরতা চলে। সাইড স্ক্যান সোনারে শব্দ তরঙ্গের মাধ্যমে ট্রলারের সন্ধান চলছে। নৌ-বাহিনীর আট সদস্যের ডুবুরী দল, ফায়ার সার্ভিসের আট ডুবরি ও বিআইডব্লিউটিএর তিনিজন ডুবরী কাজ করছে। উদ্ধারকারী জাহাজ “প্রত্যয়” উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছে।
এদিকে মুন্সীগঞ্জের মেঘনায় ট্রলারডুবির ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। নয় সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটির প্রধান মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোবাশ্বেরুল ইসলাম। ট্রলার ডুবির ঘটনার চার দিনেও কোন মামলা হয়নি। মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ খন্দকার আশফাকুজ্জামান বলেন, মামলার প্রস্তুতি নেয়া আছে। তবে এখনও ট্রলারটি সনাক্ত না হওয়ায় মামলা করা সম্ভব হয়নি। মুন্সীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মো. মোস্তফা মহসিন তৃতীয় দিনের মত মেঘনার তলদেশের প্রায় ৬০ ফুট পানির নিচে ট্রলারের সন্ধান চলছে। ট্রলারের বেঁচে যাওয়া শ্রমিক শাহ আলম দুর্ঘটনার কথা তুলে ধরে বলেন, যেন নতুন জীবন পেয়েছি। তবে সাথের শ্রমিক ভাইদের হারিয়ে খুব কষ্টে আছি।
গত সোমবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে মেঘনা নদীতে মাটি বোঝাই ট্রলার ডুবিতে ২০ শ্রমিক নিখোঁজ রয়েছে। ট্রলারের ১৪ শ্রমিক সাতরিয়ে তীরে উঠতে সক্ষম হন। নিখোঁজ শ্রমিকদের মধ্যে ১৭ জনের বাড়ি পাবনার ভাঙ্গুরিয়া উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নে। দুর্ঘটনার ২৯ ঘন্টা পর উদ্ধার কাজ শুরু হয়। তবে এখনও নিখোঁজ শ্রমিকের সন্ধান মিলেনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ