সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বিপিএলের প্রশংসা করলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স

স্পোর্টস রিপোর্টার : এবার বিপিএলে দেখা যাবে এবি ডি ভিলিয়ার্স। প্রথমবারের মতো বিপিএলে খেলতে গতকাল সকালে ঢাকায় পা রেখেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার এই তারকা ক্রিকেটার। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সের হয়ে অন্তত ছয় ম্যাচ খেলবেন তিনি। ঢাকায় পা রেখে একদমই সময় নষ্ট করেননি ডি ভিলিয়ার্স। চলে গিয়েছেন সিলেটে, দলের সঙ্গে যোগ দিতে। আজ সিলেট পর্বে রংপুরের শেষ ম্যাচে খেলার লক্ষ্যে এরই মধ্যে সেরেছেন অনুশীলন। কথা বলেছেন সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে। সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে নিজের অনুশীলনের ফাঁকে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে বিপিএলের ভূয়সী প্রশংসা করেন ডি ভিলিয়ার্স। তিনি জানান আইপিএলে খেলা ক্রিকেটারদের কাছ  থেকে বিপিএলের অনেক প্রশংসা শুনেছেন তিনি। এছাড়া তার কাছে মনে হয় বিপিএল অনেকটা আইপিএলের মতোই। ডি ভিলিয়ার্স বলেন, ‘বিপিএল প্রতি বছরই বড় হচ্ছে। গ্ল্যামার বাড়ছে। আমি বিপিএল সম্পর্কে অনেক প্রশংসা শুনেছি। এই টুর্নামেন্ট অনেকটাই আইপিএলের মতো। সেই টুর্নামেন্টে খেলা ক্রিকেটাররা আমাকে জানিয়েছে বিপিএলের খেলার মান ভালো। প্রতি বছরই এই টুর্নামেন্টের শক্তি, মর্যাদা বাড়ছে। আমি এই টুর্নামেন্টে খেলতে পেরে খুবই খুশি।’  বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স বেশ চাপের মধ্যে এখন। ছয় ম্যাচে মাত্র দুটি জয় পাওয়া রংপুরের জন্য সুখবর, অবশেষে এবি ডি ভিলিয়ার্স যোগ দিয়েছেন দলে। দক্ষিণ আফ্রিকার এই তারকা ব্যাটসম্যান কি পারবেন চাপ জয় করে দলকে সাফল্য এনে দিতে? বিপিএলে রংপুরের পরের ম্যাচ আজ সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে। সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচের আগের দিন ঐচ্ছিক অনুশীলন ছিল রংপুরের। কিন্তু ঐচ্ছিক হলেও অনুশীলনে হাজির মাশরাফি মুর্তজা, ক্রিস গেইল, অ্যালেক্স  হেলস ও ডি ভিলিয়ার্স। নেটে ২০ মিনিট ব্যাটিং প্র্যাকটিস করা ডি ভিলিয়ার্স বলেন,‘প্রত্যাশার চাপ সব সময় আমাকে ভালো খেলতে অনুপ্রাণিত করে। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই আমাকে চাপ নিয়ে খেলতে হচ্ছে। এটা আমার জন্য নতুন কিছু নয়। একজন ক্রিকেটার প্রতি ম্যাচে পারফর্ম করতে পারবে না, আর এটাই স্বাভাবিক। পারফরম্যান্সের ওঠা-নামা হবেই। তাই নিজের কাছে কখনও অতিরিক্ত প্রত্যাশা রাখি না।’ বিপিএল খেলতে এসে নিজের আনন্দের কথা জানালেও, দল হিসেবে খুব একটা সুবিধায় নেই ডি ভিলিয়ার্সের রংপুর রাইডার্স। এখনো পর্যন্ত ৬ ম্যাচে তার দল জিতেছে মাত্র ২টিতে। প্লে অফের টিকিট পেতে বাকি থাকা ৬ ম্যাচে অনেকটা তার ওপরেও নির্ভর করবে রংপুর। এ প্রত্যাশার চাপ নিয়ে খেলাটা কতটা কঠিন? এ ব্যাপারে ডি ভিলিয়ার্স বলেন,‘প্রত্যাশা আসলে চাপ নয়, আমাকে ভালো খেলতে অনুপ্রাণিত করে। প্রত্যাশা আমাকে ঘিরে রেখেছে গোটা ক্যারিয়ার জুড়েই। সুতরাং বিষয়টি আমার কাছে মোটেও নতুন কিছু নয়। ক্রিকেটে পারফরম্যান্সের ওঠা-নামা থাকবেই। প্রতি ম্যাচেই আপনি ভালো খেলবেন না। এ ব্যাপারে আমি খুবই বাস্তববাদী। আমি নিজের ওপর খুব বেশি প্রত্যাশার চাপ সে কারণেই দিই না। তবে আমি সব সময়ই বিধ্বংসী কিছু করতে চাই।’ এবারের বিপিএলে রান একটু কম হচ্ছে। মন্থর উইকেটে রান করতে বেশ সমস্যা হচ্ছে ব্যাটসম্যানদের। ডি ভিলিয়ার্স কি পারবেন ভক্তদের প্রত্যাশা মিটিয়ে জ্বলে উঠতে? প্রোটিয়া তারকার উত্তর,‘উইকেট টার্নিং হলেও আমার কোনও সমস্যা নেই। আমি সব সময় টার্নিং উইকেট ব্যাটিং উপভোগ করি। তবে বিপিএলে ভালো উইকেটেও খেলা হচ্ছে। সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে রংপুর রাইডার্সের সর্বশেষ ম্যাচটি আমি দেখেছি। সেই ম্যাচে উইকেট খুব ভালো ছিল। আশা করি, আগামীকালও উইকেট ভালো থাকবে। আমাদের দলটা দুর্দান্ত, ব্যালান্সড। সেরা চারে খেলতে আমি আশাবাদী।’ প্রথমবারের মতো বিপিএলে খেলার সুযোগ পেয়ে তিনি দারুণ খুশি, ‘বিপিএলের মাধ্যমে আমার ক্যারিয়ারের নতুন অধ্যায় শুরু হচ্ছে। বাংলাদেশে আসতে আমি পছন্দ করি। যদিও এখানে খুব বেশি আসার সুযোগ হয়নি। রংপুর রাইডার্সের মতো দারুণ একটা দল পেয়েছি। আশা করি, টুর্নামেন্টটা ভালোভাবে শেষ করতে পারবো।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ