মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

খুলনায় পক্ষকালের মাদকবিরোধী অভিযানে ২০জন গ্রেফতার

খুলনা অফিস : খুলনা জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় মাদকবিরোধী অভিযানে নতুন আইন কার্যকর হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ২০ মাদক ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মালামালসহ গ্রেফতার করে। গেল বছরের ২৭ ডিসেম্বর থেকে মাদকের নতুন আইন কার্যকর হয়েছে। এ আইনে ইয়াবা পাচার মামলায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড ছাড়াও এই প্রথম পৃষ্ঠপোষকদেরও সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে।

গত ২০১৮ সালে জেলা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর মাদকবিরোধী অভিযানে ১২৮ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা হয় ১১০টি। এ সময়ের মধ্যে আদালতের মাধ্যমে ১৫ মাদক ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ এর নতুন আইনের কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর থেকে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে সোমবার (৭জানুয়ারি) পর্যন্ত ১৬ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছেন। এ সময় তাদের কাছ থেকে ইয়াবা, ফেনসিডিল ও গাঁজা উদ্ধার করা হয়। এছাড়া ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেন। সংস্থার পরিচালক মো. রাশেদুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে ‘ক’ ও ‘খ’ সার্কেল এবং গোয়েন্দা শাখা পৃথক অভিযান পরিচালনা করেন। এর মধ্যে ‘ক’ সার্কেলের পরিদর্শক হাওলাদার মো. সিরাজুল ইসলাম সোমবার সকালে নগরীর টুটপাড়া এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় মো. শফিকুল ইসলাম মনুর ছেলে আব্দুস ছামাদ হিরাকে ৫ লিটার ডিনোচার্ট স্পিরিটসহ আটক করেন। একই দিনে লবণচরা থানাধীন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মৃত শ্রীপদ দাসের স্ত্রী বিপুল দাসকে গাঁজাসহ আটক করেন। এর আগে ‘ক’ সার্কেল পরিদর্শক আরও ৪ মাদক ব্যবসায়ীকে মাদকসহ আটক করেন। এছাড়া ‘খ’ সার্কেলের পরিদর্শক মো. সাইফুর রহমান রানা অভিযানে ৭ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেন। যার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী মিলু ফকিরকে আটক করেন। এছাড়া গোয়েন্দা শাখার পরিদর্শক পারভিন আক্তারের নেতৃত্বে অভিযানে ২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেন। অপরদিকে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় মাদকবিরোধী অভিযানে তালিকাভুক্ত মহিলা মাদক ব্যবসায়ী ৪ জনকে আটক করেছেন। এ সময় তাদের কাছ থেকে ইয়াবা ও গাঁজা উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী পারভীন বেগম (৪০), মো. সেলিম হোসেন (৪৫), মো. ছাব্বির ইসলাম (২০) এবং ফয়জুল হক হোসেন রাব্বী (২২)। মঙ্গলবার (৮ জানুয়ারি) সংস্থার ‘ক’ ও ‘খ’ সার্কেল নগরীতে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ