মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা পেলে ‘জামায়াতের বিচার আইন’ উপস্থাপন -আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা পেলে মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত দল জামায়াতে ইসলামীর বিচারের জন্য সংশোধিত ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইন’ এর খসড়া মন্ত্রিসভা বৈঠকে উপস্থাপনের জন্য পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।
গতকাল বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে সাংবাদিকদের সঙ্গে এ কথা বলেন তিনি।
আইনমন্ত্রী বিভাগের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বলেন, জামায়াতের বিচারের ব্যাপারে আইনটি করে দিয়েছি, আমাদের দায়িত্ব এটার শেষ দেখা। এটা শেষ করতে আমাদের পদক্ষেপ নিতে হবে।
আইনমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে যারা মানবতাবিরোধী ব্যক্তি তাদের বিচারের জন্য ১৯৭৩ সালে আইনটি করা হয়েছিল। তখন সেই আইনটাতে দল হিসেবে জামায়াতের বিচার করার জন্য করা হয়নি। তবে ১৯৭২ সালে যখন সংবিধান প্রণয়ণ করা হয় তখন জামায়াতকে বাতিল করা হয়েছিল। সে কারণে আইন সংশোধনের দাবি উঠেছিল।
তিনি বলেন, তিনটি রায়ে দেখা গেছে যে, জামায়াত দল হিসেবে যুদ্ধাপরাধে জড়িত। তাদের বিচারের জন্য দাবি উঠেছে সেই সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আমি বলেছিলাম যে, বিদ্যমান আইনে বিচার করা যায় না, তাই সংশোধন প্রয়োজন।
জামায়াতের বিচারের আইন সংশোধনের বিষয়টি কতদূর- পরে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে আনিসুল হক বলেন, আমরা আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইনের সংশোধন তৈরি করে ক্যাবিনেট ডিভিশনে পাঠিয়ে দিয়েছিলাম। ক্যাবিনেট ডিভিশন লেজিসলেটিভ ভাষা আবারও একটু ইয়ে (সংশোধন) করার জন্য বলেছে। আইনটি আমাদের কাছে আছে। আমরা চেষ্টা করব মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা নিয়ে আবারও আইনটি ক্যাবিনেট ডিভিশনে পাঠিয়ে দেব, যাতে এটা মন্ত্রিপরিষদে উপস্থাপন করা হয়। উপস্থাপন করা হলে এটা যাতে পাস হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ