বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

কুয়েটের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থী লাঞ্ছনার প্রতিবাদে মানববন্ধন

খুলনা অফিস : খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) অভ্যন্তরে বহিরাগত সন্ত্রাসী কর্তৃক কর্মকর্তা- কর্মচারী ও শিক্ষার্থী লাঞ্ছনার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স এসোসিয়েশনের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধের ভাস্বর্য ‘দুর্বার বাংলা’ চত্বরে আয়োজিত কর্মসূচীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।
কুয়েট অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি প্রকৌশলী মো. আনিছুর রহমান ভূঞা’র সভাপতিত্বে মানববন্ধনে একাত্ত্বতা ঘোষণা করে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ড. মো. জুলফিকার হোসেন, খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী (তড়িৎ) হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ, সহকারী পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মো. মাহমুদুল হাসান, সহকারী পরিচালক (স্টোর) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, ৩য় শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সভাপতি মো. মামুনুর রশীদ জুয়েল, ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. ইমরান আলী রনি, ৩৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. ইউসুফ আলী খলিফা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. গোলাম রসুল, খানজাহান আলী থানা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. মিজানুর রহমান রূপম, খানজাহান আলী থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. সেলিম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবু হেনা বাবলু প্রমুখ। এসময় বক্তারা উল্লেখিত ঘটনার বিচার এবং পরবর্তীতে যাতে এ ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনা না ঘটে সেজন্য প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি দাবি জানান।
মানববন্ধন শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন এর নিকট একটি উল্লেখিত ঘটনার বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি সম্বলিত একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। ভাইস-চ্যান্সেলর স্মারকলিপি গ্রহণ করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন। এছাড়া ঘটনার প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলীর দপ্তর সোমবার কর্মবিরতি পালন করেছে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, কুয়েটে কর্মরত নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসলাম পারভেজকে গত ৬ ডিসেম্বর রোববার সকাল ১০ টায় ক্যাম্পাসস্থ স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার সেন্টারের সামনে যোগীপোল ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. আরিফ হোসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকারি পুকুরে মাছ ধরতে না দেওয়া, কুয়েটের পকেট গেটস্থ সরকারি জায়গায় দোকান বসাতে না দেওয়া এবং তার কথামত প্রকৌশল শাখার সরকারি যাবতীয় কাজ বন্টন না করার বিষয়ে কৈফিয়ত চান। উক্ত বিষয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসলাম পারভেজ কৈফিয়ত প্রদানে অপারগতা প্রকাশ করলে ইউপি সদস্য মো. আরিফ হোসেন সেখানে উপস্থিত অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্রদের সামনে তাকে লাঞ্ছিত করেন এবং তার হাত-পা কেটে ফেলাসহ প্রাণনাশের হুমকি দেন। এছাড়া উক্ত ইউপি সদস্য ইতোপূর্বে কারণে অকারণে কুয়েটে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্রদের লাঞ্ছিত করেছেন বলে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। উল্লেখ্য,এ সব বিষয়সমূহ উল্লেখ করে রোববার রাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা খানজাহান আলী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন (জিডি নং-২৩৩, তারিখ-০৬/০১/১৯)।
ডুমুরিয়ার খলশী খাজুরা থেকে তিনটি গরু চুরি
খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার খলশী খাজুরা গ্রাম থেকে রাজ্জাক খান (৫০) নামে এক কৃষকের তিনটি গরু চুরি হয়েছে। এ ব্যাপারে তিনি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, খলশী খাজুরা গ্রামের মৃত সাদেক খানের ছেলে রাজ্জাক খান প্রতিদিনের মত গত রোববার রাতে তার তিনটি গরুকে খাবার দিয়ে ঘুমাতে যান। ভোরে ঘুম থেকে উঠে দেখেন তার গরু তিনটি চুরি করে নিয়ে গেছে অজ্ঞাত চোরেরা। যার আনুমানিক মুল্য দেড় লাখ টাকা বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ব্যাাপারে তিনি সোমবার সকালে ডুমুরিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ