সোমবার ০৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

টাকার বিনিময়ে নতুন বই পেল ৪৫০ জন শিক্ষার্থী

সিংড়া (নাটোর) সংবাদদাতা : নাটোরের সিংড়ায় টাকার বিনিময়ে ছাত্র-ছাত্রীদের বই দেয়ার অভিযোগ উঠেছে স্কুল ম্যানেজিং কমিটি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মহিষমারী উচ্চ বিদ্যালয়ে। এ ব্যাপারে উপজেলা নিবার্হী অফিসার স্কুলের প্রধান শিক্ষককে জরুরি ভিত্তিতে ডেকেছেন।

অভিভাবক ও স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার সকালে সারাদেশের ন্যায় এই স্কুলেও বিনামূল্যে বই বিতরণ করার কথা ছিলো কিন্তু ঘটনা বাস্তবে উল্টো। স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণী থেকে শুরু করে ৯ম শ্রেণী পর্যন্ত ৪৫০ জন শিক্ষার্থীদের বই নিতে প্রত্যেককে গুনতে হয়েছে ২৫০-৩০০ টাকা। এমনকি টাকা দিতে না পারায় ২৫-৩০ জনকে বই দেয়া হয়নি।

স্কুলের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী বিথির পিতা ভ্যানচালক বাবলু জানান, আমি একজন ভ্যানচালক, দিন এনে দিন খাই। টাকা দিতে পারিনি বলে আমার মেয়েকে বই দেয়নি। পরে টাকা ধার করে বই এনেছি। একই শ্রেণীর সুমাইয়া খাতুনের বাবা সেকেন্দার জানান, শুনেছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিনামূল্যে বই দেয়, আমরা গরীব বলে কি আমাদের ছেলে-মেয়ে বই পাবে না? 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্কুলের প্রধান শিক্ষক আঃ আলিম জানান, সেশন ফি হিসেবে টাকা নেয়া হয়েছে, রশিদ দেয়া হয়নি কেন চানতে চাইলে তিনি বলেন পরে দেয়া হবে। স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও চামারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান স্বপন মোল্লা বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সভায় এ টাকা নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে, তবে এটা সেশন ফি হিসেবে গণ্য হবে। বই না পেয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা ফিরে গেল কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমার জানা নাই। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আমিনুর রহমান বলেন, বিষয়টি মৌখিকভাবে শুনেছি, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, সেদিন কোনো সেশন ফি নেয়া যাবে না, এ বিষয়ে তাদের ডাকা হয়েছে। দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ