সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সত্য ও ন্যায়ের মৃত্যু হয়েছে -কাদের সিদ্দিকী

সখিপুর (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতা : টাঙ্গাইল-৮ (সখিপুর-বাসাইল) আসনে আ.লীগ প্রার্থী জেলা আ.লীগ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম ভিপি জোয়াহের (নৌকা) বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২লাখ ৭হাজার ৬শত ৭৯ ভোট, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী কুঁড়ি সিদ্দিকী(ধানের শীষ) পেয়েছেন ৭১হাজার ১শত ৪৪ ভোট। ভোটের ব্যবধান ১লাখ ৩৬হাজার ৫শত ৩৫ ভোট। নৌকা বেসরকারিভাবে নির্বাচিত। জাতীয় পার্টি প্রার্থী কাজী আশরাফ সিদ্দিকী(লাঙ্গল) পেয়েছেন ১হাজার তিনশত  ভোট, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী আব্দুল লতিফ মিয়া(হাতপাখা) পেয়েছেন ১হাজার ২শত ৬১ভোট, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) প্রার্থী শফি সরকার (আম)পেয়েছেন ২শত ৭৬ভোট। অপরদিকে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে রবিবার দুপুরে জাতীয় পার্টি প্রার্থী কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টি যুগ্ম মহাসচিব কাজী আশরাফ সিদ্দিকী (লাঙ্গল) ভোট বর্জন করেছেন। এদিকে রবিবার নির্বাচনের পর সখিপুর নিজ বাসায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে কাদের সিদ্দিকী অভিযোগ করেন, কোন নির্বাচনই হয়নি, প্রশাসন এতো পক্ষপাতিত্ব করতে পারে আর কখনো দেখিনি। তিনি বলেন, নির্বাচনে সত্য ও ন্যায়ের মৃত্যু হয়েছে। আ.লীগের জনগণের উপর আস্থা নেই, যতোদিন চুরি করতে পারবে ততোদিন ক্ষমতায় থাকবে, জনগণ তাদেরকে ভোট দিবে না। ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে সকাল ১১টার দিকে টাঙ্গাইল-৮ (সখিপুর-বাসাইল) আসনের সখিপুর উপজেলার ৬৯টি কেন্দ্রের ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর  পোলিং এজেন্টগণ কেন্দ্র থেকে বের হয়ে চলে যান। তাদের প্রশ্ন করা হলে বলেন, ভোট চুরি করা হচ্ছে তা দেখে সইতে না পেরে চলে যাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ