শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সাতক্ষীরা সদর-২ আসনে ধানের শীষ প্রার্থীর জামাই আটক

সাতক্ষীরা সংবাদদাতা: সাতক্ষীরা সদর-২ আসনে জামায়াত মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী মুহাদ্দীস আব্দুল খালেকের ছোট মেয়ের স্বামী সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের ইসলামী শিক্ষার সহকারী অধ্যাপক মিয়ারাজ হোসেনকে আটক করেছে পুলশি। মঙ্গলবার শহরের আমতলা মোড় সংলগ্ন মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে বাসায় ফেরার পথে পুলিশ তাকে তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করা হয়।
অধ্যাপক মিয়ারাজ হোসেনের স্ত্রী শামীমা রেদওয়ান মুঠো ফোনে জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে তার স্বামীর মোবাইল ফোন বন্ধ দেখাচ্ছিল। রাতে সেই মোবাইল ফোন থেকে কল আসে। এবং বলা হয় তার স্বামী সাতক্ষীরা সদর থানাতে আছে। বুধবার সকালে মিয়ারাজের এক আতœীয় থানাতে সকালের নাস্তা সরবরাহ করেন।
এদিকে সাতক্ষীরা সদর থানা দাবি করেছে ৮৪ হাজার টাকার জাল নোটসহ সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের ইসলামী শিক্ষার সহকারী অধ্যাপক মিয়ারাজ হোসেনকে তারা আটক করেছে। বুধবার ভোরে শহরের পলাশপোল এলাকা থেকে পুলিশ তাকে এক হাজার টাকার জাল নোটসহ আটক করে।
আটক মিয়ারাজ হোসেন সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের ইসলামী শিক্ষা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সদরের মৃগীডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ শহরের পলাশপোল মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৮৫ হাজার টাকার জাল নোটসহ মিয়ারাজ হোসেন নামের একজনকে আটক করা হয়।
উল্লেখ্য মিয়ারাজ হোসেন সাতক্ষীরা সদর দুই আসনের ধানের র্শীষ প্রার্থী ও জামায়াত নেতা মুহাদ্দিস আব্দুল খালেকের জামাই।
আটক মিয়ারাজ হোসেনের স্ত্রী শামীমা রেদওয়ান আরো  জানান, ২৫ ডিসেম্বর আসরের নামাজের পর তাকে কাটিয়া এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ। তাকে পরিকল্পিকভাবে ফাঁসানো হয়েছে। তার কিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ না থাকায় জাল টাকা সরবরাহের মামলা দিয়েছে। যা অত্যান্ত ঘৃণীত। তার দাবি তার স্বামী প্রতি মাসে অর্ধলক্ষাধিক টাকা বেতন পান তাহলে জাল টাকার ব্যবসা করার দরকার কি আছে। তিনি অবিলম্বে তার স্বামীর মুক্তির দাবি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ