শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

যে কোনোপ্রকার ত্যাগ স্বীকার করেও নির্বাচনের শেষপর্যন্ত দেখবে বিএনপি

রাজশাহী : গতকাল বুধবার রাজশাহীর বিএনপি’র প্রার্থীদের সাংবাদিক সম্মেলন -সংগ্রাম

রাজশাহী অফিস : নির্বাচনে নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে প্রধান নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ দাবি এবং বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে তার শাস্তির দাবি করেছেন বিএনপি’র চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও রাজশাহী-২ আসনের প্রার্থী মিজানুর রহমান মিনু। একই সঙ্গে শহীদ হবো অথবা কারাবরণ করবো; তবে নির্বাচনের শেষ দেখে ছাড়বো বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
গতকাল বুধবার সকালে নগর বিএনপির কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন মিজানুর রহমান মিনু। এ সময় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও রাজশাহী-১ আসনের প্রার্থী ব্যারিস্টার আমিনুল হক এবং নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী-৩ আসনের প্রার্থী শফিকুল হক মিলন বক্তব্য রাখেন। মিজানুর রহমান মিনু বলেন, ‘নির্বাচনের দিন যদি প্রচুর লোক ক্ষয় হয় এবং এখন পর্যন্ত যে লোক ক্ষয় হয়েছে, আহত হয়েছে, সন্ত্রাস হয়েছে, এর জন্য দায়ি প্রধান নির্বাচন কমিশনার। আমরা তার পদত্যাগ দাবি করছি এবং বিচার বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে তার শাস্তির দাবি করছি।’ মিনু বলেন, এখন পর্যন্ত রাজশাহী-২ আসনের ৫৯ জন বিএনপির নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নির্বাচনের আগেই তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন মিনু। মিনু বলেন, রাজশাহীর মানুষের হৃদয়ের মধ্যে ধানের শীষ গেঁথে আছে। রাজশাহীর ছয়টিসহ সারাদেশে ২৫১টি আসনেই আমরা বিজয় অর্জন করবো। ‘আগামী ৩০ ডিসেম্বর আমাদের সামনে দুইটি অবশন রয়েছে। জীবন দিব-শহীদ হবো; নইলে কারাবরণ করবো। কিন্তু নির্বাচনের শেষ পর্যন্ত দেখে ছাড়বো।’ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও রাজশাহী-১ আসনের প্রার্থী সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হক বলেন, ‘প্রচার-প্রচারণা চালানোর মত নির্বাচনের মাঠের পরিবেশ নেই। ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয়ে নিজেরাই ভাঙচুর করে। আর মামলা দিচ্ছে বিএনপির নেতাকর্মীর ওপর। সে মামলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।’ এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির উপদেষ্টা এডভোকেট কামরুল মনির, জেলা বিএনপির সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপু, নগরের সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার, জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মামুন প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ