মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সিরিজ জয়ের রেকর্ডে চোখ নিউজিল্যান্ডের

জয়ের লক্ষ্য নিয়েই বুধবার (বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোর রাত ৪টা) সিরিজ নির্ধারণী দ্বিতীয় টেস্টে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড ও সফরকারী শ্রীলংকা। প্রথমবারের মত এক নাগারে চতুর্থ সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নিয়ে লংকার বিপক্ষে দুই টেস্টেও সিরিজ শুরু করে কিউরা। কিন্তু ভাল অবস্থানে থাকার পরও প্রথম টেস্ট ড্র হওয়ায় হতাশ স্বাগতিকরা। 

প্রথমে ব্যাটিং বিপর্যয়ের পরও গত সপ্তাহে ওয়েলিংটনে এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ এবং কুসল মেন্ডিজের রেকর্ড পার্টনারশীপে ম্যাচ ড্র করে শ্রীলংকা। সবুজ উইকেটে শুরু হতে যাওয়া বক্সিং ডে টেস্টের আগে শ্রীলংকা উইকেটরক্ষক নিরোশান ডিকবেলা বলেন, ‘প্রথম ম্যাচ থেকে এ টেস্টের জন্য আমরা অনেক আত্মবিশ্বাস পেয়েছি।’ 

‘এখানে  কিছুটা মুভমেন্ট পেলে আমাদের বোলাররা কাজটা ভালভাবে  করতে পারবে এবং কোথায় বল করতে হবে তারা সেটা জানে। উপমহাদেশের ন্যায় এখানে ফুলার লেন্থে বল করা যাবেনা।’ বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে দ্বিতীয় স্থানে ওঠার সম্ভাবনা নিয়ে লংকার বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজ শুরু করে কিউইরা। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে উভয় ম্যাচে জয় পেলে র‌্যাংকিংয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে যেত স্বাগতিকরা। ওয়েলিংটনে ম্যাথুজ এবং মেন্ডিসের নায়কোচিত ব্যাটিং এবং এরপর পঞ্চম দিনে বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি ড্র হয়। এখন স্বাগতিকদের লক্ষ্য এক নাগারে চতুর্থ টেস্ট সিরিজ জয়। নিজেদের ৮৮ বছরের ক্রিকেট ইতিহাসে  নিউজিল্যান্ড চারবার এক নাগারে তিনটি টেস্ট সিরিজ জিততে পেরেছে।  

গর্বের রেকর্ড: সারা বছরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড এবং পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জয় করেছে নিউজিল্যান্ড। এরপর  শ্রীলংকার বিপক্ষে একমাত্র ইনিংসে ৫৭৮ রান করা মানে এক নাগারে চতুর্থ সিরিজ জয়ে চোখ তাদের।

দলের ব্যাটিং কোচ ক্রেইগ ম্যাকমিলান বলেন, ‘নিজ মাঠের রেকর্ড নিয়ে আমরা অত্যন্ত গর্বিত এবং আমি মনে করি এটাই এখন একটি চ্যালেঞ্জ। এই একটি টেস্ট এবং এবং সিরিজ জয় দলটির জন্য অনেক কিছু।’

প্রথাগতভাবেই হেগলি ওভালের উইকেটে পেস এবং বাউন্স থাকবে। উভয় দলই বলছে টসে জিতে প্রথমে বোলিং করা গুরুত্বপূর্ণ।

 ওয়েলিংটনে প্রায় ১২ ঘন্টা ক্রিজে থেকে ২৬৪ রানে অপরাজিত থাকা নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং নায়ক টম লাথাম বলেন ওভালের পিচে বোলারদের ভিন্ন কিছু চিন্তা করতে হবে।

 তিনি বলেন, ‘স্বাভাবিকভাবেই এখানে কিছুটা পেস ও বাউন্স থাকবে এবং সিমারদের সহায়ক হবে সুতরাং শ্রীলংকার ন্যায় আমাদেরও যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কন্ডিশনকে মানিয়ে নিতে হবে।’

হেগলি ওভালে সর্বশেষ ২০১৪ সালে বক্সিং ডে টেস্টে মুখোমুখি হয়েছিল নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলংকা। সে ম্যাচে সফরকারীরা টস জিতে আগে বোলিং করে ৮ উইকেটে জয় পেয়েছিল। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ