শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

টঙ্গীবাড়ীতে ১০০ টাকা চুরীর অপবাদ দিয়ে গৃহবধূর গায়ে আগুন! ২ জন গ্রেফতার

মুন্সীগঞ্জ সংবাদদাতা: টঙ্গীবাড়ীতে ১শত টাকা চুরীর অপবাদ দিয়ে এক গৃহবধূর গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে ভুক্তিভোগী ওই গৃহবধূ ইভার শরীরের ৭০ ভাগ অংশ আগুন পুড়ে গেছে বলে জানাগেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটিতে ভর্তি রয়েছে। এই ঘটনায় আহত গৃহবধূর পিতা ইব্রাহিম শেখ বাদী হয়ে টঙ্গীবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। পুলিশ এই ঘটনায় মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে গৃহবধূর স্বামী মো. রায়হান শিকদার এবং শাশুড়ি আলেমা বেগমকে গ্রেফতার করে গতকাল বুধবার বিকালে মুন্সীগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করেছে। 

জানাগেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আউটশাহী ইউনিয়নের ভোরন্ডা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সরজমিনে গিয়ে জানাযায়, প্রায় চার বছর পূর্বে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার ভোরন্ডা গ্রামের আকছির শিকদার এর ছেলে রায়হান (২৬) এর সাথে একই উপজেলার বাইনখাড়া গ্রামের ইব্রাহিম শেখ এর মেয়ে ইভা (২৩) এর প্রেমের সম্পর্কের মাধ্যমে পরিবারের অন-ইচ্ছায় বিবাহ হয়। বিবাহের পর থেকে তারা ঢাকার একটি স্থানে বসবাস করতে থাকে। কিন্তু তাদের আলাদা করার জন্য আহতের শাশুরী আলেমা বেগম ওরফে রিনা বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা করে আসছিলো। এর মধ্যেই তাদের একটি পুত্র সন্তান জন্ম হয়। ওই সন্তান জন্মের পর থেকে আহতের শাশুরী ভিন্নপন্থা অবলম্বন করে নিজ পুত্র এবং পুত্র বধূকে মেনে নেওয়ার ভান করে তাদের নিজ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসে। এরপর থেকেই শুরু হয় ওই গৃহবধূর উপর বিভিন্ন রকম অত্যাচার। লোকলজ্জার ভয়ে নির্যাতিত গৃহবধূ তার আত্মীয় সজন ও প্রতিবেশী কাউকে না বললেও প্রতিবেশীরা প্রায় দেখতে পেতো ওই গৃহবধূর ওপর নির্যাতন করছে তার শাশুরী জানান প্রতিবেশীরা।

এ ব্যাপারে ওই এলাকার ইউপি সদস্য মোক্তার হোসেন শিকদার জানান, ভুক্তভোগী গৃহবধূ মেয়েটি নিরীহ শান্তশিষ্ট, তাকে কখনও উচ্চ স্বরে কথা বলতে শুনিনি। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী গৃহবধূ জানান, গত ৩দিন যাবৎ বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আমার শাশুরী আমার সাথে অশালিন ভাষায় গালিগালাজ করে আসছে এবং আমাকে খাবার খেতে দিচ্ছিলো না। 

গত পরশুদিন আমাকে গালিগালাজ করলে আমি তাকে খারাপ ভাষায় গালি দিতে মানা করলে সে আমার হাত মুচড়িয়ে হাতে প্রচন্ড ব্যাথা দেয়। পরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আমি তাদের ১০০ টাকা আত্মসাৎ করছি বলে আমার স্বামী ও শাশুরী আমাকে বিভিন্নভাবে টর্চার করে এবং আগে থেকেই এনে রাখা ২লিটার কেরোসিন তেল ঢেলে দিয়ে দেয়াশলাই দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে বাইর থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়। আমার আর্তচিৎকারে পার্শ্ববর্তী লোক এগিয়ে এসে আমার শরীরের আগুন নিভায়। 

এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী থানা ওসি শাহ মো. আওলাদ হোসেন জানান, এই ঘটনায় মামলা হয়েছে। ২ জনকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করে মুন্সীগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ