মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

পরাজয় হবে বুঝে বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর হামলা ও গণগ্রেফতার করছে সরকার -অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার

খুলনা : গতকাল ডুমুরিয়ায় উঠান বৈঠকে বক্তব্য রাখছেন খুলনা-৫ (ডুমুরিয়া-ফুলতলা) আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোট মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার

খুলনা অফিস : খুলনা-৫ (ডুমুরিয়া-ফুলতলা) আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোট মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেছেন, তারা বুঝে গেছে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তাদের পরাজয় হবে। তাই নেতাকর্মীদের উপর হামলা ও গণগ্রেফতার শুরু করেছে। তিনি বলেন, সরকারের ইশারায় নির্বাচন কমিশন চলছে। তারা সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ তৈরী করতে পারেনি। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ জনসমর্থন হারিয়ে এখন দিশেহারা। তিনি বলেন, ঘরে ঘরে গিয়ে ধানের শীষে ভোট চাইতে হবে। ভোটের দিন সকালে নিজে ভোট দেবেন এবং ভোটারদের কেন্দ্রে নিয়ে ধানের শীষে ভোট নেবেন। সারাদিন ভোট কেন্দ্র পাহারা দেবেন। ফলাফল না নিয়ে ঘরে ফেরা যাবে না। কেউ যেন ভোট চুরি করতে না পারে। জনগণের ভোট রক্ষা হলে বিজয় আমাদের নিশ্চিত। তিনি অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তি এবং দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান। তিনি সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ডুমুরিয়া-ফুলতলা বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে এসব কথা বলেন।
সকালে খানজাহান আলী থানার আটরা-গিলাতলা ইউনিয়নের উপজেলার শিরোমনি গ্রাম দিয়ে দিনের গণসংযোগ শুরু করেন মিয়া গোলাম পরওয়ার। এরপর তিনি একই ইউনিয়নের ৮ নং ও ৯ নং ওয়ার্ডসহ বিভিন্ন এলাকায় লিফলেট বিতরণ, গণসংযোগ ও ঊঠান বৈঠক করেন।
এ সময় তার সাথে ছিলেন খুলনা উত্তর জেলা ভারপ্রাপ্ত আমীর মাওলানা কবিরুল ইসলাম, সেক্রেটারি মুন্সি মিজানুর রহমান, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এসএ রহমান বাবুল, মহানগর বিএনপি নেতা শেখ ইকবাল হোসেন, জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি মুন্সি মঈনুল ইসলাম, অধ্যাপক মিয়া গোলাম কুদ্দুস, ফুলতলা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এ কে এম গাউসুল আজম হাদি, ফুলতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আবুল বাশার, রফিকুল ইসলাম শুকুর, জামায়াতের মিয়া মুজাহিদুল ইসলাম, গাজী মোর্শেদ মামুন, ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় নেতা ইমরান খালিদ, জেলা ছাত্রশিবির সভাপতি তাওহীদুর রহমান, সেক্রেটারি নাহিদ হাসান প্রমুখ।
খুলনা-৬ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী কারাবন্দী আবুল
কালাম আজাদের পক্ষে ব্যাপক গণসংযোগ
খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোট মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী খুলনা মহানগরী জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা আবুল কালাম আজাদের পক্ষে প্রচারণাকালে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, ধানের শীষ প্রার্থীরা বলেছেন জনগণ আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। তারা যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করে ধানের শীষে ভোট দিবে। প্রশাসন নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করছে না। আমরা জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে বিভিন্ন অভিযোগের পরও কোন কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। ঐক্যফ্রন্টের ১১টি লক্ষ্যকে সামনে রেখে ভোটযুদ্ধে নামতে ভোটারের প্রতি আহবান জানান প্রার্থীরা। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে কয়রা-পাইকগাছা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগকালে নেতৃবৃন্দ এ সব কথা বলেন। এছাড়াও বিভিন্ন ইউনিয়নে নির্বাচনী অফিস উদ্বোধন এবং এজেন্টদের সাথে বৈঠক করা হয়।
এসময় নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে ধানের শিষে ভোট দিতে হবে। ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থীরা বিজয়ী হলেই দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে সকলকে ভোট বিপ্লব ঘটাতে হবে। দেশের সন্ত্রাস এবং নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি থেকে বের হতে হলে ধানের শীষ প্রতীককে বিজয়ী করার বিকল্প নেই।
এ ছাড়া ধানের শীষের প্রার্থী মাওলানা আবুল কালাম আজাদের পক্ষে কয়রা উপজেলার বাগালী, কয়রা, দক্ষিণ বেদকাশী, মঠবাড়ি, আমাদী, মহেশ্বরীপুর, উত্তর বেদকাশীসহ বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করা হয়। অপরদিকে পাইকগাছা উপজেলার হরিঢালী, গদাইপুর, চাঁদখালী, পৌরসভা, লস্কর, রাড়ুলী, সোলাদানা ইউনিয়নে পৃথক গণসংযোগ করা হয়। উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট লিয়াকত আলী, কাজী তামজীদ হোসেন, মাওলানা শেখ কামাল হোসেন, গোলাম সরোয়ার, মাওলানা আমিনুল ইসলাম, এডভোকেট আব্দুল মজিদ, মাওলানা আব্দুল হান্নান, মো. মিজানুর রহমান, আক্তারুজ্জামান, হাফিজুল ইসলাম, আবু সাঈদ, আলতাফ হোসেন, আল আমিন প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ