রবিবার ৩১ মে ২০২০
Online Edition

সাকিবের না খেলার কোনো কারণ নেই ------স্টিভ রোডস

স্পোর্টস রিপোর্টার : নেটে ব্যাটিং করার সময় গতকাল পায়ের আঙ্গুলে চোট পেয়ে মাঠ ছেড়ে ড্রেসিংরুমে চলে যান সাকিব আল হাসান। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নেটে পাশাপাশি ব্যাটিং করছিলেন মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসান। বেলা এগারোটায় শুরু হওয়া অনুশীলনে শুরু থেকেই সাবলীল ছিলেন সাকিব। কিন্তু হুট করেই একটি ডেলিভারী এসে আঘাত হানে সাকিবের পায়ের নিচের দিকে। সাথে সাথে ড্রেসিংরুমে চলে যান তিনি। সাকিবের ইনজুরির ধরণ কতটা গুরুতর? সাকিব কি ম্যাচে খেলতে পারবেন? কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন দলের প্রধান কোচ স্টিভ রোডস। এতে করে বেড়ে যায় শঙ্কা। তবে কি গুরুতর ইনজুরি পেয়ে বসেছে সাকিবকে? সংবাদ সম্মেলন শুরুর আগে বাংলাদেশ দলের মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম জানিয়েছেন মূলত ড্রেসিংরুমে বরফ দেয়া হচ্ছে বলেই সাকিব আসেননি সংবাদ সম্মেলনে। তার পরিবর্তে এসেছেন রোডস। তবে রোডস আশ্বস্ত করেছেন প্রথম ম্যাচে সাকিবই নেতৃত্ব দেবেন বাংলাদেশ দলকে। এসময় সাঈফউদ্দীনের সেই ইয়র্কারের প্রশংসা করে রোডস বলেন, ‘এটা ভালো ডেলিভারী ছিলো। তবে এখন সাকিব ভালো আছে। বরফ দিচ্ছে পায়ে। আমার মনে হয় না আগামীকাল তার না খেলার কোনো কারণ আছে।’ তবে বিসিবি প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী খানিক পরে নিশ্চিত করেছেন সাকিবের সামনের পায়ের দ্বিতীয় আঙ্গুলে বল লেগেছে, এখন ড্রেসিংরুমে বরফ দেয়া হচ্ছে। দেবাশীষ বলেন, ‘বেশ ভালোই ব্যথা পেয়েছে, বরফ দেয়া হচ্ছে। সাকিব বলেছে খুব সিরিয়াস মনে হচ্ছে না, তারপরও আমরা তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছি। পরবর্তী অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ দারুণ একটা অর্জনের সামনে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ। এর আগে কখনও কোন দলের বিপক্ষে টেস্ট, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিততে পারেনি টাইগাররা। টেস্ট আর ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজেও কি পরাস্ত হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ? স্বাগতিকদের কোচ স্টিভ রোডস আশাবাদী। টেস্ট-ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয় সম্ভব কিনা এমন প্রশ্নে রাডস বলেন, ‘অবশ্যই সম্ভব। তবে জেতার জন্য নিজেদের সেরাটা দিতে হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো দলের বিপক্ষে তিনটি সিরিজ জিততে পারলে দারুণ হবে। কাজটা অবশ্য সহজ হবে না। তবে ক্রিকেট ভক্তদের বলতে পারি, আমরা নিজেদের উজাড় করে দেবো।’ অন্য দুই ফরম্যাটের তুলনায় টি-টোয়েন্টিতে ক্যারিবীয়দের পারফরম্যান্স অনেক ভালো। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বর্তমানে ওয়েস্ট ইন্ডিজই চ্যাম্পিয়ন। যদিও র‌্যাংকিংয়ে অনেক পিছিয়ে সপ্তম স্থানে আছে তারা। টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে দশম স্থানে থাকা বাংলাদেশ কি এই সিরিজে ফেভারিট? রোডসের উত্তর, ‘আমরা দুর্দান্ত পারফর্ম করে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছি। এর আগে টেস্ট সিরিজেও ভালো করেছি। এই মুহূর্তে আমরা দারুণ আত্মবিশ্বাসী। এটা ঠিক যে ২০ ওভারের ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনেক ভালো দল। টি-টোয়েন্টিতে তারা বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন, র‌্যাংকিংয়েও আমাদের চেয়ে এগিয়ে। তবে গত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে আমরা টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতেছিলাম। পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পারলে এবারও সফল হবো আশা করি।’ আত্মবিশ্বাসের পাশাপাশি দুটো বিষয়ে আক্ষেপ আছে রোডসের মনে, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে কয়েকজন বিগ হিটার আছে। তাদের মিস হিটও অনেক সময় ছক্কা হয়ে যায়। এই জায়গায় ঘাটতি আছে বাংলাদেশ দলে। আমাদের বিগ হিটার খুঁজে বের করতে হবে। এছাড়া আমাদের ফিল্ডিংয়ে ধারাবাহিকতার অভাব আছে। এখানেও উন্নতি করতে হবে।’ টেস্ট আর ওয়ানডে দলে থাকলেও একটি ম্যাচও খেলার সুযোগ হয়নি আরিফুল হকের। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে এই তরুণ ব্যাটসম্যানের খেলার সম্ভাবনা নিয়ে কোচের মন্তব্য, ‘আরিফুল ফ্যান্টাসটিক ক্রিকেটার। তার না খেলাটা দুর্ভাগ্যজনক। তবে কাল তার খেলার ভালো সম্ভাবনা আছে। যদিও এখনই সেই নিশ্চয়তা দেয়া যাচ্ছে না।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ