বৃহস্পতিবার ২৮ মে ২০২০
Online Edition

শেরপুর-৩ আসনে বিএনপি প্রার্থীর গণসংযোগ

শেরপুর সংবাদদাতা : আওয়ামী লীগ ও প্রশাসনের বাধায় ঝিনাইগাতীর নলকুড়া ইউনিয়নের রাংটিয়া ও পাতার মোড়ে গত ১৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) আসনের বিএনপি দলীয় প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য এবং জেলা বিএনপি সভাপতি মো. মাহমুদুল হক রুবেলের পক্ষে আহুত পথসভা পন্ড হয়ে গেছে। পরে মাহমুদুল হক রুবেল ওই ইউনিয়নের রাংটিয়া, পাতার মোড়, সন্ধ্যাকুড়া, হলদিগ্রাম চৌরাস্তা, ফাকরাবাদ, জারুলতলা ও ভারুয়া বাজারে গণসংযোগ করেন।
ঝিনাইগাতী উপজেলা বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, ১৪ ডিসেম্বর বিকাল ৩টায় ঝিনাইগাতীর রাংটিয়া ও পাতার মোড় এলাকায় বিএনপির পূর্ব নির্ধারিত পথসভা ছিল। যা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) অবগত করা হয়। কিন্তু বৃহস্পতিবার দুপুরে যুবলীগ একই জায়গায় সভা ডেকে মাইকিং করায় পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসন ওই সব স্থানে কোনো ধরণের সভা করা যাবেনা বলে জানিয়ে দেন। তাই বিএনপি দলীয় প্রার্থী রুবেল পথসভার কর্মসূচী পরিবর্তন করে ওই দিন নলকুড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন বাজারে গণসংযোগ করেন। গণসংযোগের একপর্যায়ে ফাকরাবাদ বাজারে নলকুড়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী ফর্সার নেতৃত্বে কতিপয় আওয়ামী লীগের দলীয় ক্যাডাররা বিএনপি সমর্থকদের গণসংযোগ কাজে বাধা প্রদান করে গায়ে পড়ে ঝগড়া বাধাতে চায় এবং নানা উসকানিমূলক শ্লোগান দেয়।
এ ব্যাপারে বিএনপি মনোনীত, ২০ দলীয় ঐক্যজোট এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সমর্থিত প্রার্থী মাহমুদুল হক রুবেল বলেন, নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড এখনও তৈরি হয়নি। প্রায় প্রতিদিন আমার দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এতে নির্বাচনী পরিবেশ দারুণভাবে বিঘিœত হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, অগণতান্ত্রিক আচরণ ও গায়ে পড়ে ঝগড়া লাগিয়ে জনগণের বিজয় ছিনিয়ে নেয়া যাবে না। জনগণ ২০ দল তথা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাথে রয়েছে। যতই হামলা মামলা আর বাধা আসুক জনগণ ৩০ ডিসেম্বর ধানের শীষে ভোট দিয়ে এসব হামলা মামলা আর বাধার জবাব দেবে। তিনি নেতা-কর্মীদের ধৈর্যের সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান।
ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবেল মাহমুদ জানান, একই জায়গায় দুটি দল সভা আহ্বান করায় তাদের মৌখিকভাবে নিষেধ করা হলে কোনো দলই আর ওইখানে সভা করেনি।     
গণসংযোগের সময় উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মো. আমিনুল ইসলাম বাদশা, আব্দুস সালাম, মো. খলিলুর রহমান, মো. শহিদুল ইসলাম, রেজাউল করিম রুমী, জেলা ছাত্রদল সভাপতি মো. শওকত হোসেনসহ সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা  উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ