শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ভুয়া খবর প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা: জমি নিয়ে বিরোধে মায়ের হত্যাকারী বানিয়ে পত্রিকায় উদ্দেশ্যমূলক খবর প্রকাশের প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেলে কেশবপুর শহরের বায়সা মোড়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন পৌর এলাকার বায়সা গ্রামের ইকবাল হোসেন।  লিখিত বক্তব্য পাঠকালে ইকবাল হোসেন জানান, তিনি কৃষি কাজের পাশাপাশি স্বল্প পুঁজিতে ধান, পাটের ব্যবসা করে পরিবার পরিজনের জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। তার প্রতিপক্ষ শাহীন আলম সম্পর্কে তার ভাগ্নে হয়। গত ৬ মাস ধরে তার সাথে আমার বসত ভিটার জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ কারণে ওই জমির ওপর যশোর সহকারি জজ আদালতে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। যার নং-১৮০/১৮। গত ৩ ডিসেম্বর আমি পৈত্রিক ৯০ শতক চাষী জমির মেহগনি গাছ কর্তন করি। এ সময় শাহীন আলম ওই গাছগুলি অনৈতিকভাবে দাবি করে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে মিথ্যা অভিযোগ দেয়। এছাড়া সে গত ২০ নভেম্বর আমার সাথে এওয়াজের ৪০ শতক জমির বিভিন্ন প্রজাতীর গাছ বিক্রি করে আতœসাত করে। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির কারণে এ বিরোধ প্রকাশ্য রূপ নেয়। এদিকে, প্রতিপক্ষ এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে আমার মায়ের মৃত্যুকে পুঁজি করে আমার ও আমার পরিবারের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে থানায় থানায় অভিযোগ করলে দু‘দফা সালিস হলেও শাহীন আলম ও মিজানুর রহমান তা মেনে না নিয়ে এলাকার একটি মহলের ইন্দোনে আমার জমি দখলের ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। তারা গত ৪ ডিসেম্বর আমাকে মায়ের (খোদেজা বেগমের) হত্যাকারি বানিয়ে ভুয়া সংবাদ সম্মেলন করে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশ করেছে। প্রকৃতপক্ষে, আমার মা ২০১৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর রাতে নিখোঁজ হন। পরের দিন থেকে এলকায় মাইকিং করে তার সন্ধানও মেলেনি।
অবশেষে ১৭ ডিসেম্বর সকালে পার্শ্ববর্তী আব্দুল মান্নানের পুকুরে মায়ের মৃতদেহ পাওয়া যায়। পরে পুলিশের নির্দেশে লাশ দাফন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, রবিউল ইসলাম, আব্দুল মজিদসহ গ্রামবাসি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ