বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

গুগল ম্যাপের দশ অজানা ফিচার

আবু হেনা শাহরীয়া: দৈনন্দিন জীবনে বহুল ব্যবহৃত একটি অ্যাপ গুগল ম্যাপ। প্রায়শই অ্যাপটিকে কেবলমাত্র সাধারণ ভ্রমণ এবং নেভিগেশন উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়। তবে আপনি চাইলে আরও অনেক উদ্দেশ্যে এটিকে ব্যবহার করতে পারেন। গুগল ম্যাপের এমন দশটি বিকল্প ব্যবহারের কথাই তুলে ধরা হলো।
অবস্থান শেয়ার করুন : গুগল ম্যাপের সাহায্যে চাইলে আপনার বর্তমান অবস্থান শেয়ার করতে পারেন। এটি করার জন্য ম্যাপ অ্যাপের সাইড মেন্যু করে চাপতে হবে। এরপর আপনার অবস্থান নির্দেশ করা 'নীল বিন্দু' আইকনে চাপুন। অবস্থান শেয়ার করুন- এ আলতো চাপুন এবং কার সঙ্গে অবস্থান শেয়ার করতে চান তা নির্বাচন করুন। উপরন্তু আপনি সেই সময় সীমাটিও নির্ধারণ করতে পারেন যে, কত সময়ের জন্য এই লাইভ ট্র্যাকটি চালু করতে চান।
গন্তব্য খুঁজুন: গুগল ম্যাপ আপনার বর্তমান অবস্থানের কাছাকাছি এটিএম বুথ থেকে শুরু করে পেট্রোল পাম্প, রেস্টুরেন্ট ও বার- গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা খুঁজে দিতে সক্ষম। শুধু তাই নয়, অ্যাপটি সেসব স্থানের প্রয়োজনীয় সব তথ্য যেমন- কতক্ষণ খোলা থাকে, ফোন নম্বর ও রেটিং আপনাকে জানিয়ে দেবে।
রাইড শেয়ারিং সেবার মূল্য তুলনা: এখন থেকে পরবর্তী সময়ে আপনি যখনই অ্যাপভিত্তিক কোনো ক্যাব ভাড়া নেবেন তখন গুগল ম্যাপ ব্যবহার করে শুধু ট্র্যাফিক আপডেট সম্পর্কে না জেনে এসব অ্যাপভিত্তিক সার্ভিসের মূল্য জেনে নিয়ে একটি আনুপাতিক তুলনাও করে নিতে পারেন। কারণ গুগল ম্যাপ ব্যবহার করে ওলা বা উবারের মতো বিভিন্ন ক্যাব পরিসেবা সরবরাহকারীদের মূল্য তুলনা করা যায়। এ ফিচারটি ব্যবহার করতে আপনার গন্তব্য অনুসন্ধান করুন এবং দিকনির্দেশনায় চাপুন। তারপর ওপরের দিকে 'টপ রাইডস'-এ আলতো চাপুন। পরিসেবা সরবরাহকারী নির্বাচন করার পর গুগল ম্যাপটি অ্যাপটিতে চালু করুন। এখন গন্তব্য স্থানে যাওয়ার মূল্য তালিকা আপনার গুগল ম্যাপে সংরক্ষিত হয়ে যাবে।
দেখুন অন্দরচিত্র: গুগল ম্যাপ ব্যবহার করে আপনি চাইলে যে কোনো স্টোর, বিমানবন্দর অথবা হোটেলের অন্দরচিত্রও দেখতে পারবেন। আপনি যে স্থানে আগে ভ্রমণ করেছেন, তার অন্দরচিত্র দেখতে ম্যাপে স্থানটির নাম বা ঠিকানার ওপর আলতো করে চাপুন। এরপর রাস্তার দৃশ্যের প্রতীক সংবলিত '৩৬০ ফটো'তে চাপুন।
স্থানের নির্দেশনা: বর্তমানে এই ফিচারটি শুধু আইফোন এবং আইপ্যাড ব্যবহারকারীদের জন্যই চালু করেছে গুগল। এর মাধ্যমে গুগল ম্যাপ ব্যবহারকারীরা তাদের আইফোন আনলক না করেই অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে আইফোনের উইজেট স্ট্ক্রিনটি ফোন আনলক না করেই ব্যবহার করা যেতে পারে।
রিমাইন্ডার সেটিংস: যারা পূর্বনির্ধারিত মিটিংয়ে যেতে সব সময় দেরি করেন, তারা তাদের পরবর্তী ভ্রমণের পরিকল্পনাটি আরও ভালোভাবে তৈরি করতে এই ফিচারটি ব্যবহার করতে পারেন। প্রথমে গুগল ম্যাপে গন্তব্যস্থানটি অনুসন্ধান করুন এবং দিকনির্দেশনা চাপুন এবং পরিবহনের ধরন নির্বাচন করুন। এখন 'রিমাইন্ডার সেট করুন' এবং অপশনটি নির্বাচন করুন।
পরিবহন সেবা: গুগল ম্যাপ ব্যবহারকারীরা এর মাধ্যমে ট্রেন এবং বাসের পৌঁছানো এবং প্রস্থানের সঠিক সময়ও জানতে পারেন। এ জন্য গন্তব্যস্থানটিতে টাইপ করুন এবং নির্দেশাবলিতে চাপুন। তারপর স্ট্ক্রিনের ওপরে ট্রানজিট ট্যাপ করুন।
স্থান বা ল্যান্ডমার্ক: গুগল ম্যাপে আপনি যে স্থান এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে রয়েছেন সে সম্পর্কে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা এবং উত্তর দিতে পারেন। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক এবং অন্যরা সরাসরি এই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেন। এজন্য আপনি যে স্থানটি সম্পর্কে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করতে চান, সে স্থানটি অনুসন্ধান করুন। নিচের দিকে নামটি ট্যাপ করুন। আপনার প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করার আগে কেউ ইতিমধ্যে প্রশ্ন ও উত্তর সেকশনের অধীনে একই প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করেছে কি-না তা আগে যাচাই করে নিন। বিভিন্ন ভাষায় গুগল ম্যাপ
যখন আপনি ভ্রমণ করছেন- তখন চাইলে গুগল ম্যাপের নির্দেশনাগুলোর ভয়েস এবং ভাষা পরিবর্তন করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে মেন্যু সেটিং আলতো করে চাপতে হবে। নেভিগেশন সেটিংসে গিয়ে ভয়েস অপশন চেপে ভাষা নির্বাচন করুন।
ফটো এবং ভিডিও: ফিচারটির মাধ্যমে গুগল ম্যাপ ব্যবহারকারীরা তারা যে স্থানটিতে ভ্রমণ করতে চান তা দেখতে কেমন তা দেখতে পারেন। সমস্ত ফটো বা ভিডিও তারা ধারণ করেন তা যেকোনো সময় মুছেও ফেলা যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ