সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

এমদাদ আলী খান ছিলেন মানবসেবার অনন্য দৃষ্টান্ত

ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংস্থা তমদ্দুন মজলিসের উদ্যোগে বিশিষ্ট সমাজসেবক মরহুম এমদাদ আলী খানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়

ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংস্থা তমদ্দুন মজলিসের উদ্যোগে বিশিষ্ট সমাজসেবক মরহুম এমদাদ আলী খানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তাগণ বলেছেন মরহুম এমদাদ আলী খান ছিলেন সাম্প্রদায়িকতাসহ সকল প্রকার সংকীর্ণতার উর্দ্ধে মানবতার সেবায় নিবেদিত এক অসাধারণ ত্যাগী পুরুষ। তিনি প্রমাণ করে গেছেন, দারিদ্র্য মানবসেবার কাজে বাধা হতে পারে না। তিনি ছিলেন মহানবীর (সা.) সাহাবীদের আদর্শে উদ্বুদ্ধ এক মহান সমাজসেবী। যেখানেই কোনো মানুষ বিপন্ন হয়েছে বলে তিনি শুনতেন, তিনি ছুটে যেতেন সেখানেই এবং দেহমন উজাড় করে দিয়ে তার সেবায় লেগে পড়তেন। তার সেবা থেকে বঞ্চিত হতো না বিপন্ন পশু পাখিরাও। 

বক্তাদের অনেকেই এ ব্যাপারে তাদের নিজেদের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন এবং মন্তব্য করেন, এমদাদ আলী খান ছিলেন মানবতার আকাশে এক উজ্জল নক্ষত্র। যেই তার ঘনিষ্ঠ সান্নিধ্যে আসতো সেই তার গুণমুগ্ধ হয়ে পড়তো। এমদাদ আলী খান ইসলাম আর মানবতাকে অভিন্ন স্বত্তা বলে বিশ্বাস করতেন। 

তমদ্দুন মজলিসের মহানগর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় সংগঠনের প্রকাশনা সম্পাদক ড. মোহাম্মদ একরামুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক ও বিশিষ্ট ভাষাসৈনিক অধ্যাপক মোহাম্মদ আবদুল গফুর। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কবি আবদুল মুকীত চৌধুরী, মোহাম্মদ শাহাবুদ্দীন খান, গোলাম মোস্তফা তাপস, ফুয়াদ মাহমুদ খান, কবি এস আই জনি ও মোহাম্মদ তাওহিদ খান প্রমুখ। 

হামদ নাত পরিবেশন করেন শামীমা আক্তার সিদ্দিকা এবং মরহুম এমদাদ আলী খানের ওপর প্রবন্ধ পাঠ করেন সংগঠনের সাংস্কৃতিক কর্মী মুহাম্মদ সুজন মাহমুদ। সভা শেষে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ