ঢাকা, শুক্রবার 18 September 2020, ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ মহররম ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

ভিকারুননিসার ছাত্রী আত্মহত্যার ঘটনায় প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

শিক্ষকদের তিরস্কারের শিকার হয়ে রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে দেখা দিয়েছে তীব্র ক্ষোভ।

অভিভাবকরা মঙ্গলবার সকালে প্রতিষ্ঠানটির বেইলি রোড ক্যাম্পাসের সামনে জড়ো হন এবং অভিযুক্ত শিক্ষকদের বহিষ্কারের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

ভিকারুননিসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার বলেন, বেইলি রোড ক্যাম্পাসের প্রভাতী শাখার প্রধান জিন্নাত আরার বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে এবং তাকে আত্মহত্যার ঘটনার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিজের দায়িত্ব পালন থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে।

এছাড়া, এই প্রধান শিক্ষককে ঘটনার ব্যাখ্যা দিতেও বলা হয়েছে বলে জানান আশরাফ তালুকদার।

মঙ্গলবার বিক্ষোভের মাঝেই হাইকোর্ট এক পর্যবেক্ষণে বলে, ভিকারুননিসা নূন স্কুলের ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা খুবই হৃদয় বিদারক। শিক্ষার্থীর সামনে বাবা-মাকে অপমানের ঘটনাকে বাজে রকমের দৃষ্টান্ত বলেও মন্তব্য করে আদালত।

এদিকে, আত্মহত্যার ঘটনাটি তদন্ত করতে দুটি পৃথক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সরকার ঢাকা আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসের পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মাদ ইউসুফকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। কমিটির বাকি দুই সদস্য হলেন- ঢাকা আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসের উপ-পরিচালক শাখাওয়াত হোসেন এবং জেলা শিক্ষা অফিসার বেনজীর আহমেদ। কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া, স্কুল কর্তৃপক্ষও তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে যাকে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন আতাউর রহমান, খুরশিদ জাহান ও ফেরদৌসি জাহান। তারা সবাই ভিকারুননিসার পরিচালনা কমিটির সদস্য।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ মঙ্গলবার সকালে ভিকারুননিসার বেইলি রোড ক্যাম্পাসে যান। এসময় তিনি সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে জানান, আত্মহত্যার ঘটনাটি সরকার গুরুত্ব দিয়ে দেখছে।

‘আমি পরিষ্কার করে বলে দিতে চাই, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ ঘটনা অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে দেখছে। আমরা মনে করি এ ধরনের ঘটনা… শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার বিষয়টি আমাদের সবার কাছে খুবই হৃদয় বিদারক,’ বলেন তিনি।

মন্ত্রী আরও বলেন, ইতিমধ্যে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি দেখবে কারা এতে (আত্মহত্যায়) প্ররোচনা দিয়েছেন এবং প্রতিবেদন জমা দেয়ার পরই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঘটনাটিকে শুধুমাত্র মানসিক বিষয় নয়, অপরাধ হিসেবে বিবেচনায় নেয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা বিষয়টি নিয়ে পুলিশের সাথে কথা বলেছি এবং তাদের সহায়তা করতে বলেছি।’ নিহতের অভিভাবকদের সাথে ফোনে কথা হয়েছে বলেও জানান নাহিদ।

উল্লেখ্য, পরীক্ষা চলাকালে মোবাইল ফোন ব্যবহারের কারণে শিক্ষকদের তিরস্কারের শিকার হয়ে সোমবার ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রী অধিকারী তাদের রাজধানীর শান্তিনগরের বাসায় আত্মহত্যা করে।-ইউএনবি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ