শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

সিলেট-৫ এর এমপি প্রার্থী ফরিদ চৌধুরীর সমর্থকদের হয়রানি করা হচ্ছে

সিলেট ব্যুরো : সিলেট-৫ (কানাইঘাট-জকিগঞ্জ) আসনে ২৩ দলীয় জোট মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী সাবেক এমপি প্রিন্সিপাল মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী তার সমর্থকদের পুলিশ কর্তৃক অন্যায়ভাবে গ্রেফতার, দমন-পীড়ন ও বাসা বাড়িতে তল্লাশির নাম করে বিভিন্নভাবে হয়রানির বিরুদ্ধে আবারও এক লিখিত অভিযোগ সিলেটের জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার বরাবর  জমা  দিয়েছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার  দুপুরে  জেলা রিটার্নিং অফিসার কাজী এমদাদুল ইসলামের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)  মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ  অভিযোগটি গ্রহণ করেন।

লিখিত অভিযোগে মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, আমি গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-২০১৮ এর তফসিল ঘোষণার পর থেকে আমার নির্বাচনী এলাকার কর্মী, সমর্থকদের গ্রেফতারসহ বিভিন্নভাবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ভয়-ভীতি, হুমকি, বাসা বাড়িতে তল্লাশির নামে আসবাবপত্রসহ জিনিসপত্র তছনছ ও অসৌজন্যমূলক আচরণের মাধ্যমে হয়রানি করছে।

তিনি এর আগে গত ২০ নবেম্বর অন্যায়ভাবে গ্রেফতারকৃত ১৫ জনের সুনির্দিষ্ট তালিকাসহ রিটার্নিং অফিসার বরাবরে অভিযোগ দিয়েছিলেন উল্লেখ করে বলেন, সেই অভিযোগ দেয়ার পরও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অশুভ তৎপরতা থেমে নেই এমনকি গত ২৮শে নভেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের পরে ঐ দিন রাতেও আমার নির্বাচনী কর্মীদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

অভিযোগে উল্লেখ করেন, সর্বশেষ গত ৩ দিনে তার নির্বাচনী কর্মী কানাইঘাট উপজেলার রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের হাফিজ মাসুম আহমদ, সড়কের বাজার এলাকার সড়কের বাজার মসজিদের সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল বাসিত ও জকিগঞ্জ উপজেলার বারহাল ইউনিয়নের নির্বাচন সমন্বয়কারী আব্দুস সামাদকে কোন রকমের মামলা না থাকা সত্বেও সম্পূর্ণ অন্যায় ভাবে আটক করে গায়েবী মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এছাড়াও কানাইঘাট উপজেলার আগফৌদ নারাইনপুরের আব্দুল মালিক, বড়দেশ এলাকার আব্দুল করিম, দীঘিরপার এলাকার মোস্তাফিজুর রহমান, গাছবাড়ী এলাকার আব্দুস শহীদ সহ বিভিন্ন জনের বাসা-বাড়িতে তল্লাশীর নামে ঘরের জিনিসপত্র ওলটপালট, নারী, শিশু, বৃদ্ধা সহ ঘুমন্ত নীরিহ লোকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছে পুলিশ। 

তিনি আরো বলেন নির্বাচন কমিশনের স্পষ্ট নির্দেশনাকে উপেক্ষা করে কিছু সংখ্যক অতি উৎসাহী, দলীয় মনোভাবাপন্ন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের অন্যায় আচরণের ফলে আমার নির্বাচনী কর্মী সমর্থকদের মাঝে উদ্বেগ-উৎকন্ঠা, ভয়-ভীতি, আশংকা ও নিরাপত্তাহীনতা কাজ করছে। আমি মনে করি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর এরকম একপেশে, অযাচিত কর্মকান্ডে নির্বাচনী মাঠে আমার জন্য বৈরী পরিবেশ তৈরী হবে। 

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর এরকম কর্মকান্ড সুষ্টু নির্বাচনের জন্য মারাত্মক প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করবে ও নির্বাচনী প্রশাসনকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে উল্লেখ করে তিনি অবাধ, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানান। 

এসময় মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরীর সাথে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও সিলেট জেলা (উত্তর) আমীর হাফিজ মাওলানা আনওয়ার হোসাইন খান, জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জেলা জামায়াতনেতা আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন ও জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান গোলাম রুকবানী চৌধুরী জাবেদ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ