বুধবার ০২ ডিসেম্বর ২০২০
Online Edition

গ্রামীণ জনপদে আইনশৃঙ্খলার অতন্দ্র প্রহরী চৌকিদাররা ভাল নেই

গ্রামাঞ্চলের চৌকিদাররা তাদের দুর্দশার কথা বলছেন -সংগ্রাম

গ্রামীণ জনপদে আইন শৃংখলার কাজে নিয়োজিত অতন্দ্র প্রহরী গ্রাম পুলিশ। গ্রামাঞ্চলে এদেরকে কেউ চৌকিদার বলে, কেউ বলে দফাদার ও মহল্লাদার। কুষ্টিয়ার প্রায় সকল ইউনিয়ন পরিষদের ৫ শতাধিক চৌকিদাররা অর্থের অভাবে মানবেতর অবস্থায় দিনাতিপাত করছে।
একজন গ্রাম পুলিশকে দিনের বেলায় গ্রামের একাধিক দেন-দরবারে উপস্থিতি থেকে শুরু করে বাদী-বিবাদীকে বাড়ী থেকে ডেকে আনাসহ ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের অসংখ্য আদেশ-নির্দেশ পালনের পাশাপাশি রাতে সমাজ বিরোধী আর চোর-ডাকাতের হাত থেকে গ্রামবাসীকে রক্ষা করার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকতে হয়। এছাড়া তাদের ওপর প্রতি সপ্তাহে  উপজেলা সদরে এসে পুলিশের কাছে এলাকার আইনশৃংখলা পরিস্থিতির বিশদ রিপোর্ট করতে হয়। অথচ এত কঠোর দায়িত্ব পালনের পরও  মাস শেষে একজন গ্রাম পুলিশ (মহল্লাদার) বেতন পায় ১৯ শত টাকা আর দফাদার বেতন পায় ২১ শত টাকা। অনেক আন্দোলন সংগ্রামের পর তাদের এ বেতন শুরু হয়েছে। তাও আবার অর্ধেক দেয় সরকার আর অর্ধেক দেয় ইউনিয়ন পরিষদ।  দুর্মূল্যের বাজারে একটি পরিবারের  ভরণ-পোষণ করা যেখানে সম্ভব হচ্ছে না, সেখানে এ স্বল্প পরিমাণ বেতনের টাকাও বকেয়া পড়ে রয়েছে অনেকের।
এমতাবস্থায় তাদের জীবনযাপন করা অত্যান্ত কঠিন হয়ে পড়েছে। তাদের স্বল্প বেতন পরিবারের জন্য আরো বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ স্বল্প বেতন দিয়ে তারা না পারছে সংসার চালাতে না পারছে সন্তান সন্ততিদের লেখাপড়াসহ ভরণ-পোষণ দিতে। এমতাবস্থায় তাদের জীবনযাপন করা অত্যন্ত কঠিন হয়ে পড়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ