শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

মহেশখালীতে অগ্নিকাণ্ডে ৮ দোকান ভস্মীভূত ॥ ১৬ লাখ টাকার ক্ষতি

মহেশখালী সংবাদদাতা, ১৬ নবেম্বর: ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের খালের উত্তরকূল এলাকায় বিদ্যুতের শর্ট সার্কিটে ৮ দোকান  ভস্মীভুত ক্ষয়ক্ষতি পরিমাণ প্রায় ১৬ লাখ টাকা, আহত ৪ জন। ১৪ নভেম্বর বিকাল দেড় টায় বিদ্যুতের শর্ট সার্কিটে ৮ দোকানের মালিক ও ক্ষয়ক্ষতি-আবুল খায়েরের পুত্র আব্দুর রশিদের চাউলের দোকান ক্ষয়ক্ষতি সাড়ে ৩ লাখ, হাজী শোর আহমদের পুত্র রফিকুল ইসলামের সারের দোকান ক্ষয়ক্ষতি ২ লাখ, এরশাদ আলীর পুত্র মাওলানা আজিজুর রহমানের মডার্ণ হারবাল ঔষধের দোকান ক্ষয়ক্ষতি ১ লাখ, গোলাম বারীর পুত্র মো. হোসাইনের ফার্মেসীর দোকান ক্ষয়ক্ষতি ২লক্ষ, মৃত উপেন্দ্রের পুত্র সুমন শর্মার সেলুনের দোকান ক্ষয়ক্ষতি ৫০ হাজার, মোহাম্মদের পুত্র আব্দুল গফুরের সারের দোকান ক্ষয়ক্ষতি আড়াই লাখ, মৃত কামাল পাশার পুত্র আমির হোসাইনের পাইপ ফিল্টারের দোকান ক্ষয়ক্ষতি দেড় লাখ ও মৃত কামাল পাশার পুত্র জাকির হোসেনের মুদির দোকান ক্ষয়ক্ষতি আড়াই লাখ টাকার মত। খালের উত্তরকূল এলাকার ৪নং ওয়ার্ডের মৃত আলহাজ্ব আব্দুল জাব্বারের পুত্র মো. রফিকুল ইসলাম ও মৃত নাজির আলীর পুত্র বক্তার আহমদের মালিকানাধীন ভবন (জব্বার মার্কেট)। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে যারা আহত হয়েছে-আলী হোসেনের পুত্র সাদ্দাম হোসেন, আলী হোছেনের পুত্র মাওলানা মঈন উদ্দিন, ওমর সুলতানের পুত্র জুবাইর ও বখতিয়ারের পুত্র হোসাইন কামাল। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিস গিয়েছিল। ভস্মীভূত দোকান, ক্ষয়ক্ষতি ও আহতদের দেখতে ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়েছে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জামিরুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিপাহীর পাড়া এলাকার বাসিন্দা আজিজুর রহমান ও সাংবাদিক এম রমজান আলী সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ