রবিবার ২৬ জুন ২০২২
Online Edition

নির্বাচন বানচালে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছে বিএনপি -ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘নির্বাচন বানচাল আর শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাচ্যুত করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে নয়াপল্টনে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছে বিএনপির কর্মীরা। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, ‘এই ঘটনায় নির্বাচন কমিশন কী ভূমিকা রাখে তা দেখার অপেক্ষায় থাকবে আওয়ামী লীগ।
গতকাল বুধবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সভা শেষে দলের ধানমন্ডি কার্যালয়ে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি তাদের সিনিয়র লিডার মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে পুলিশের ওপর হামলা করেছে। এ দল সন্ত্রাসী দল। এ দল নির্বাচন চায় না। এ দল দেশে নৈরাজ্য, অরাজকতা সৃষ্টি করে নির্বাচিত শেখ হাসিনার সরকারকে উৎখাত করতে চায়।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে নির্বাচনে বিজয় সুনিশ্চিত; তাই যাকেই দলের মনোনয়ন দেয়া হোক, নৌকার পক্ষে সবাইকে একসাথে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন শেখ হাসিনা। দলীয় সিদ্ধান্তের বিপক্ষে কেউ অবস্থান নিলে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে।’
ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের ওপর হামলা করে বিএনপি আবারও প্রমাণ করেছে তারা সন্ত্রাসী দল। তিনি বলেন, তাদের দলের সিনিয়র নেতা মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে এই হামলা হয়েছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নয়াপল্টনে পুলিশের ওপর হামলা হলে পুলিশ ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে, পাল্টা আক্রমণ করেনি। আমাদের ধৈর্য ধরতে হবে। প্রধানমন্ত্রী ধৈর্য ধরতে বলেছেন।
তিনি বলেন, ‘সংবিধান অনুযায়ী আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এখন নির্বাচন কমিশনের হাতে ন্যস্ত। নির্বাচন কমিশন কী ব্যবস্থা নেয়, সেদিকে আমরা তাকিয়ে আছি। প্রকাশ্য দিবালোকে তারা যা করলো, সে বিষয়ে কমিশন কী করবে, তা আমরা দখতে চাই, জানতে চাই।’
সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি বোমা-সন্ত্রাসের দল। দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে তারা শেখ হাসিনার সরকারকে উৎখাত করতে চায়।’
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, যত চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্রই হোক, এই নির্বাচন মানুষের প্রত্যাশার নির্বাচন। মানুষ ভোট দেয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে আছেন। নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করলে বাংলাদেশের জনগণই তা প্রতিহত করবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ