শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আওয়ামী লীগের সংলাপের ফল শূন্য বলা যায় না -কাদের

স্টাফ রিপোর্টার: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আওয়ামী লীগের সংলাপের ফলাফল শূন্য এটা বলা যাবে না। তারা (ঐক্যফ্রন্ট) যে লিষ্ট দিয়েছে তা নিয়ে কাজ শুরু করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
গতকাল শুক্রবার সকালে দলের মনোনয়ন ফরম বিক্রির পর সাংবাদিকদের সাথে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল হানিফ, জাহাঙ্গীর করির নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, এনামুল হক শামীম, মহিবুল হাছান নওফেল, দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মনোনয়ন সংগ্রহে মধ্য দিয়ে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ২ টি ফরম সংগ্রহ করা হয়েছে। তারপর জাতীয় সংসদের স্পিকারের জন্য মনোনয়ন সংগ্রহ করেছে হুইপ আতিকুল রহমান। মনোনয়ন ফরম বিক্রির মধ্য দিয়ে নির্বাচনের যাত্রা শুরু হয়েছে। সারা বাংলাদেশে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে।
তিনি আরো বলেন, আজ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ের ৮টি বুথ থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন। আগামী ১১ নবেম্বর রোববার বিকাল সাড়ে ৩টায় মনোনয়ন বোডের চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে পার্লামেন্টের বোড সভা অনুষ্ঠিত হবে। পার্লামেন্টের বোর্ডের মনোনয়ন বিক্রির শেষ তারিখ ঠিক করা হবে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, নির্বাচনের আইন মেনেই তপশিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশনের অধীনের সমস্ত বিষয়। তপশিল ঘোষণার পর আমরা একটা নিয়মের মধ্যে চলে গেছি। সংলাপের ফলাফল শূন্য এটা বলা যাবে না। তারা যে লিষ্ট দিয়েছে তা নিয়ে কাজ শুরু করা হয়েছে।
আওয়ামী লীগের মনোনয়ন
ফরম বিক্রি শুরু
স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার জন্য মনোনয়ন পত্রের ফরম সংগ্রহের মধ্য দিয়ে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের আবেদনপত্র বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছে আওয়ামী লীগ।
দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার জন্য মনোনয়নের আবেদনপত্র সংগ্রহের মাধ্যমে দলীয় মনোনয়নের ফরম বিক্রির কার্যক্রম উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
গতকাল শুক্রবার সকাল দশটায় দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার জন্য মনোনয়নের আবেদনপত্র সংগ্রহ করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিজের এলাকা গোপালগঞ্জ-৩ আসনের জন্য মনোনয়নের আবেদনপত্রসহ মোট দু’টি আবেদনপত্রের ফরম সংগ্রহ করা হয়।
এছাড়াও জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী দেশের বাইরে থাকায় তার পক্ষেও দলীয় মনোনয়নের আবেদনপত্রের ফরম সংগ্রহ করেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় তার সঙ্গে জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ আ স ম ফিরোজ ও হুইপ আতিকুর রহমান আতিক উপস্থিত ছিলেন।
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দলীয় মনোনয়নের আবেদনপত্রের ফরম বিতরণ কার্যক্রম উপলক্ষে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয় ও তার আশে-পাশে পুরো এলাকায় উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। দলের শত শত নেতা-কর্মী তাদের পছন্দের প্রার্থীর মনোনয়নের আবেদনপত্র সংগ্রহের জন্য এখানে হাজির হয়েছে।
সকাল ১০টা থেকে দলীয় মনোনয়নের ফরম বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়। এ জন্য দলীয় সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ের বর্ধিত ভবনে দেশের আট বিভাগের জন্য আটটি বুথ খোলা হয়েছে। বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং সাংগঠনিক সম্পাদকরা মনোনয়ন বিতরণ কার্যক্রম তদারকি করছেন।
ঢাকা বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, সিলেট বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, রংপুর বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এমপি, চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম, খুলনা বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান এমপি এবং সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল-মাহমুদ স্বপন এমপি, বরিশাল বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এমপি, রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি এবং ময়মনসিংহ বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরমের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ হাজার টাকা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ